পাকিস্তানের ম্যাচ কমে যাওয়ায় পিসিবিকে তোপ ইনজামামের

করোনার কারণে পরিবর্তন এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটসূচিতে। ২৩ জুলাই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচের আগে করোনা ধরা পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এক সাপোর্ট স্টাফের।

এরপর ম্যাচটি স্থগিত করা হয়। সেই ওয়ানডে অবশ্য দুই দিন পর হয়েছে। এই সিরিজের পর শুরু হওয়ার কথা ওয়েস্ট ইন্ডিজ-পাকিস্তান সিরিজ। কিন্তু করোনার কারণে অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজের নির্ধারিত সূচির সময়ে পরিবর্তন আনা হয়।

সময়ের দৈর্ঘ্য বাড়িয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজটা ঠিকই শেষ করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু এতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ কমে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের।আজ বুধরার বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় শুরু হয়ে গেছে পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ। এই সিরিজ হওয়ার কথা ছিল পাঁচ ম্যাচের। কিন্তু সেটা কমে হয়ে গেছে চার ম্যাচ। আগামী ৩ আগস্ট চতুর্থ টি-টোয়েন্টি দিয়ে শেষ হবে এই সিরিজ। এরপর ১২ আগস্ট শুরু প্রথম টেস্ট।একটি সিরিজের সময়সূচি বদলের কারণে কেন অন্য আরেকটি সিরিজের সূচিতে প্রভাব পড়বে? এই প্রশ্ন তুলছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম-উল-হক। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি এ জন্য কাঠগড়ায় তুলেছেন দুই দেশের বোর্ডকেই, ‘আমি বুঝতে পারছি না, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোর্ড এমন একটা প্রস্তাব কীভাবে দিল, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) এই প্রস্তাবে কীভাবে রাজি হলো? কোভিডের কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সূচিতে বদল আনতে হয়েছে। সেটার সঙ্গে পাকিস্তান সিরিজের সম্পর্ক কী?’

পাকিস্তানের জন্য বিষয়টা অমর্যাদার মনে করেন ইনজামাম, ‘আমি অবাক হয়ে গেছি যে, এমন অমর্যাদার প্রস্তাবে পাকিস্তান রাজি হয়ে গেল। এগুলো আন্তর্জাতিক ম্যাচ। কোনো ক্লাব ক্রিকেট নয় যে কেউ একজন বলল আর সঙ্গে সঙ্গে সূচি বদলে গেল।’

পাকিস্তানের সফরের যে সূচি, তাতে আরেকটি টি-টোয়েন্টি অনায়াসেই জায়গা পেতে পারত বলে মনে করেন ইনজামাম, ‘টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ ৩ আগস্ট। টেস্ট সিরিজ শুরু হবে ১২ আগস্ট। মাঝখানে অনেক বিরতি আছে। অনায়াসেই সেই সময়ে একটি টি-টোয়েন্টির জায়গা হয়ে যেত। ওয়েস্ট ইন্ডিজ কোনো ম্যাচ বাতিল করতে চাইলে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে করতে পারত! ওয়েস্ট ইন্ডিজ যা করেছে, তা পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য মর্যাদাহানিকর।’

এসব ক্ষেত্রে আইসিসিরও একটা ভূমিকা দেখেন ইনজামাম, ‘আইসিসির এসব খতিয়ে দেখা উচিত। আগে আমরা একটি টেস্ট কমাতে রাজি হলাম, এখন একটি টি-টোয়েন্টি কমে গেল। টেস্ট ম্যাচ কমানো না হয় বুঝতে পারলাম যে সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, এই সংস্করণই বেশি খেলা জরুরি। কিন্তু টি-টোয়েন্টিও কমিয়ে দেওয়ার মানে কোনোভাবেই বুঝলাম না।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের সমালোচনা করার পর ইউটিউবে ভারতীয় দলের রিজার্ভ বেঞ্চের প্রশংসা করেন ইনজামাম। এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডে টেস্ট খেলার জন্য রয়েছে ভারত। আগামী ৪ আগস্ট নটিংহামে শুরু হবে ইংল্যান্ড-ভারত প্রথম টেস্ট।

কিন্তু এর আগে চোট হানা দিয়েছে ভারতীয় শিবিরে। ওপেনার শুবমান গিল, অলরাউন্ডার ওয়াশিংটন সুন্দর, পেসার আবেশ খান ছিটকে গেছেন চোটের কারণে। কিন্তু এসব নিয়ে কেন ভারতের দুশ্চিন্তা নেই, সেটাই বললেন ইনজামাম।

তাঁর মতে, ভারতের রয়েছে শক্ত রিজার্ভ বেঞ্চ, ‘ইংল্যান্ডে ভারত চোট সমস্যায় ভুগছে। সুন্দর ও গিল আনফিট। বিরাট কোহলির রয়েছে পিঠে সমস্যা। প্রথম টেস্টের আগে ফিট হয়ে ওঠার চেষ্টা করছে সে। আজিঙ্কা রাহানের হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট। এত কিছুর পরও ভারতের জন্য ভালো খবর হচ্ছে, ওদের রিজার্ভ বেঞ্চ বেশ শক্তিশালী। যদিও গুরুত্বপূর্ণ কিছু খেলোয়াড় চোটে আছে, তারপরও ওরা অতটা সমস্যায় পড়বে না।’

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: