কর্মহারাদের খুঁজে বের করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ দিতে হবে: ওবায়দুল কাদের

করােনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যারা কর্ম হারিয়ে দিশেহারা হয়ে মুখে কিছু বলতে পারছেন না, তাদের খুঁজে খুঁজে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ত্রাণ দিতে হবে।

বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অসহায় গরিব মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের আগে নিজ বাসভবন থেকে ভিডিও কানফারেন্সের মাধ্যমে সংযুক্ত হয়ে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির উদ্যোগে বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধির মাধ্যমে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হবে।

কাদের বলেন, দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে আওয়ামী লীগ সারাদেশে ত্রাণ তৎপরতা এবং করোনা প্রতিরোধ ও চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ করছে। আওয়ামী লীগের নেতকর্মীরা জনগণের পাশে আছেন। অসহায় মানুষের পাশে আছেন।

তিনি বলেন, গরিব, নিম্নমধ্যবিত্ত অনেক মানুষ আছেন যারা আজ কর্ম হারিয়ে দিশেহারা। অনেকেই মুখে বলতে পারছেন না। কিন্তু ভেতরে ভেতরে অনেক কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন। এসব লোকদের খুঁজে তাদের মাঝে আওয়ামী লীগের ত্রাণ উপ-কমিটি যে খাদ্য ও চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে, সেটা প্রশংসনীয়।

করোনাভাইরাসের জন্য সামনে আরও দুর্গম পথ পাড়ি দিতে হবে জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই সংকট প্রলম্বিত হওয়ার কথা বলেছে। এর অর্থ, এই সংকট আরও বহুদিন থাকবে। এখনও অনেক পথ চলতে হবে, অনেক দুর্গম পথ পাড়ি দিতে হবে। তবে ভয়ের কারণ নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা ভয়কে জয় করবো। শেখ হাসিনা এ যাবত প্রমাণ করেছেন কীভাবে ক্রাইসিসকে সম্ভাবনায় পরিণত করা যায়। আওয়ামী লীগ সে রকম একজন নেত্রীর নির্দেশনায় কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা এখন দুটি জিনিসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছি। এর একটা যুদ্ধ হচ্ছে করোনাভাইরাসকে প্রতিরোধ করা। আরেকটা যুদ্ধ হচ্ছে আমাদের গরিব ও অসহায় মানুষকে প্রটেকশন দে্ওয়া। এই দুইটি লড়াই আমরা করে যাচ্ছি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।

সংকট মোকাবেবলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে-বিদেশে সাহসী নেতা হিসেবে সুপরিচিত উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমাদের নেতৃত্বে এমন একজন আছেন, যিনি বাংলাদেশের অনেক সংকটের সাহসী এবং পরীক্ষিত নেতা। তার হাতে যে দায়িত্ব তাতে জনগণ আস্থা রাখতে পারেন। শেখ হাসিনার সৎ ও পরিচ্ছন্ন নেতৃত্বে যে করোনা প্রতিরোধ লড়াইয়ে নেমেছি, সেই লড়াইয়ে বিজয় আমাদের হবেই।

কৃষকের ধান কাটা কর্মসূচিতে কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ নেতারা অংশ নে্ওয়ায় তাদের ধন্যবাদ জানান ওবায়দুল কাদের।

পরে দেশের আলেম-ওলামা, মটরচালক লীগ, মহিলা শ্রমিক লীগ, ফটো জার্নালিস্ট, মুক্তিযোদ্ধা এবং বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।