বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে খেলতে মানা সালাহ–আলিসনদের

আগামী মাসের বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে আলিসন-ফিরমিনোদের পাচ্ছে না ব্রাজিল। আফ্রিকার দেশ মিসর পাবে না দলের সবচেয়ে বড় তারকা সালাহকে। শুধু লিভারপুলের তারকারাই কেন, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ আজ জানিয়ে দিয়েছে যুক্তরাজ্যের লাল তালিকায় থাকা ২৬ দেশের ৬০ ফুটবলারের কাউকে দেশের হয়ে আগামী মাসের বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে খেলার অনুমতি দেবে না তাঁরা। কাল প্রিমিয়ার লিগের জরুরি সভায় সর্বসম্মতভাবে পাস হয়েছে এই নিষেধাজ্ঞা।

ব্রিটিশ সরকার করোনা ঝুঁকি কমাতে কিছু দেশকে লাল তালিকায় ফেলেছে। সেই সব দেশে থেকে যুক্তরাজ্যে ফিরলে ১০ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকা বাধ্যতামূলক। বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব খেলে যুক্তরাজ্যে ফিরলে ফুটবলারদের ওই সব দেশের ফুটবলারদেরও থাকতে হবে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে। তাতে ক্লাবের হয়ে ২-৩টি ম্যাচ খেলা হবে না তাঁদের।

প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলেছে তারা নিতান্ত বাধ্য হয়েই নিয়েছেন সিদ্ধান্ত, ‘প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো চায়নি এমন কিছু করতে। তবে শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়েই সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে লাল তালিকায় থাকা দেশের খেলোয়াড়দের না ছাড়ার।’

এর আগে গতকাল মিসরীয় ফুটবল ফেডারেশন জানায় লিভারপুল তাদের ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহকে ছাড়তে চাইছে না। আগামী মাসে অ্যাঙ্গোলা ও গ্যাবনের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের দুটি ম্যাচ খেলবে মিসর।

কাল এটাও জানা যায় লিভারপুল ব্রাজিলের তিন খেলোয়াড় ফাবিনিও, রবার্তো ফিরমিনো ও আলিসন বেকারকেও ছাড়বে না। আগামী মাসে তিনটি ম্যাচ খেলবে ব্রাজিল। যার একটিতে প্রতিপক্ষ আর্জেন্টিনা।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আগামী মাসে আর্জেন্টিনার সঙ্গে ম্যাচ আছে ব্রাজিলের

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আগামী মাসে আর্জেন্টিনার সঙ্গে ম্যাচ আছে ব্রাজিলের
ছবি: রয়টার্স

ক্লাব ও দেশের দ্বন্দ্বে শেষ পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করে প্রিমিয়ার লিগ। প্রিমিয়ার লিগ জানিয়েছে ফিফার নিয়ম মেনেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা, ‘ফিফার বর্তমান নিয়মে আছে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে ফেরার পর কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক না হলে খেলোয়াড় ছাড়তে হবে।’

ইংলিশ ক্লাবগুলো কোয়ারেন্টিন ছাড় চেয়েছিল ব্রিটিশ সরকারের কাছে। এ নিয়ে বৈঠকও হয়েছে দুপক্ষের। তবে সরকার ছাড় দিতে রাজি হয়নি।

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: