নাটোরের বড়াইগ্রামে প্রকাশ্যে হাসপাতালের ম্যানেজারকে অপহরণ। এখনও খোঁজ মেলেনি

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়া পৌর শহরের ব্যস্ততম হাইওয়ে থানার মোড় থেকে স্থানীয় পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালের ম্যানেজার গোলাম রসুল স্বাধীন (৪০)কে অপহরণ করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে সাদা রংয়ের দুইটি হাইয়েজ মাইক্রোবাস থেকে পাঞ্জাবী সহ সাধারণ পোষাক পরিহিত কয়েক ব্যক্তি তাকে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও এখন পর্যন্ত (রবিবার ১১ মার্চ বিকেল) তার কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। গোলাম রসুল স্বাধীন নাটোরের লালপুর উপজেলার গোপালপুরের মঞ্জুর হোসেন খানের ছেলে। বর্তমানে তিনি স্বপরিবারে বনপাড়া হারোয়াতে বাস করেন।
প্রত্যক্ষদর্শী পৌর শহরের ফল বিক্রেতা দেলোয়ার হোসেন জানান, স্বাধীন তার কাছ থেকে ফল কিনতে এসেছিলেন। এরই মধ্যে দুইটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস তার দোকানের সামনে এসে দাড়ায়। এ সময় পেছনের মাইক্রোবাস থেকে পাঞ্জাবী পড়া ৩০-৩২ বছর বয়সের এক লোক নেমে স্বাধীনকে জানায় গাড়ির ভিতরে স্যার আপনাকে ডাকে। এ কথা শুনে গাড়ির কাছে যেতেই আরও দুই/তিন জন নেমে স্বাধীনকে ধাক্কা মেরে গাড়িতে তুলে নাটোর-ঢাকা অভিমুখে দ্রুত চলে যায়। ওই সময় আশে-পাশে আরও লোকজন থাকলেও কিছু বুঝে উঠার আগে ঘটনাটি ঘটে যায়। ফলে কেউ গাড়ি দুটির কোন নাম্বার সংগ্রহ করতে পারেনি।
এ ব্যাপারে পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালের মালিক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী জানান, স্বাধীনের সাথে কারও কোন শত্রুতা আছে বলে তার জানা নেই। অত্যান্ত শান্তি প্রিয় তিনি। তাকে অপহরণের পর দুর্বৃত্তরা এখন পর্যন্ত কোন ফোন কাউকে করেনি। থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে। পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে তাকে উদ্ধারের জন্য।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহরিয়ার খাঁন জানান, এ ব্যপারে তদন্ত চলছে। চেষ্টা করা হচ্ছে অপহৃতকে উদ্ধারের।
এদিকে গত বছর ২৮ নভেম্বর বড়াইগ্রামের বনপাড়া থেকে খ্রিষ্টান ধর্ম যাজক ও জোনাইল সেন্ট লুইস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাদার উইলিয়াম রোজারিও (৪২) অপহৃত হওয়ার ৫ দিন পর সিলেট থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। গত ২৮ জানুয়ারী বনপাড়ার একটি ব্যাংক থেকে তিন লক্ষ টাকা তুলে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে পৌর শহরের কালিকাপুর এলাকা থেকে অপহৃত হয় প্রবাস ফেরত মামুন হোসেন (৩৮)। তাকে হাইয়েজ গাড়িতে তুলে নিয়ে সব টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেয় এবং দেড় ঘন্টা পর সিরাজগঞ্জ মহাসড়কে তাকে নামিয়ে দেয়। উল্লেখ্য, বনপাড়া পৌর শহরের মধ্যে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও হাইওয়ে থানা রয়েছে। পুলিশের সরব উপস্থিতি থাকা সত্ত্বেও ছোট্ট পৌর শহরে অপহরণ, মার্কেটের বিভিন্ন দোকানে দুর্র্ধষ চুরি, অবাধে ইয়াবা কেনা-বেচায় স্থানীয়দের মধ্যে উদ্বিগ্ন দেখা দিয়েছে। সচেতন সুধী মহল জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশকে আরও দায়িত্বশীল হতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

%d bloggers like this: