মহেশপুরে গৃহবধূকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলা গয়েশপুর গ্রামে এক গৃহ বধূকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে তার শ্বশুবাড়ীর লোকজন। সরোজমিনে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যার সময় গয়েশপুর গ্রামের মিমাজ উদ্দিন(২৮) এর স্ত্রী শারমিন খাতুন(২২) কে তার শ্বশুর, শ্বাশুড়ী ও ননদ মিলে তার উপর অমানুষিক নির্যাতন করে মেরে ফেলে গলায় রশি দিয়ে ঘরের আড়ায় টাঙ্গিয়ে রাখে। পরে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। পরিবারের লোকজন মহেশপুর থানায় খবর দিলে মহেশপুর থানার এস.আই বজলুর রহমান ঘটনাস্থলে যেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং শনিবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য ঝিনাইদহে মর্গে পাঠায়। উল্লেখ্য চার বছর আগে একই উপজেলার বগা গ্রামের শাহিনের মেয়ে শারমিনের সাথে মিনাজ উদ্দিনের বিয়ে হয়। তাদের দেড় বছর বয়সের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। মিনাজ ভারতের কেরালায় কাজ করে। মেয়ের পিতা শাহিন এবং মাতা মাজেদা বেগম এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন, আমার মেয়েকে তার শ্বশুর, শ্বাশুড়ী ও ননদ যৌতুকের দাবীতে প্রায়ই নির্যাতন করত। মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে আমরা গ্রামের লোকজন নিয়ে যেয়ে দেখি আমার মেয়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহৃ রয়েছে। আমার মেয়েকে তারা হত্যা করে গলায় রশি দিয়ে আড়াই টাঙ্গিয়ে রেখে আত্মহত্যার নাটক সাজাচ্ছে। আমরা এই হত্যার বিচার দাবী করছি।
এ বিষয়ে এস.আই বজলুর রহমান জানান, শারমিনের শ্বশুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেন। তিনি ঘটনাস্থলে যেয়ে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে এসে মর্গে পাঠিয়েছেন। ময়না তদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত তিনি কিছুই বলতে পারছেন না।

 

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

%d bloggers like this: