পুলিশের সহযোগিতা নেয়া যাবে বাড়ির দরোজায় সাঁটানো মোবাইল নাম্বার দেখে

নূর মোহাম্মদ কিশোরগঞ্জ :

একটা সময় ছিল, পুলিশের সেবা পেতে মানুষকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হতো। থানার ওসি কিংবা সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তার সাথে দেখা করা কিংবা তার মোকাইল নাম্বার পেতে ছুটতে হতো এখানে-সেখানে। কিন্তু পুলিশের মধ্যে সেবার মানসিকতা গড়ে উঠায় কমেে এসছে ভোগান্তি।

এখন আর কোন অভিযোগ জানাতে কিংবা পুলিশের জরুরি সেবা পেতে থানায় ছুটতে হবেনা। মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা ও পুলিশের সেবা সাধারণ মানুষের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে কিশোরগঞ্জে উদ্বোধন করা হলো জেলা পুলিশের বিট পুলিশিং কার্যক্রম।

বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি-এ শ্লোগান নিয়ে কিশোরগঞ্জে শুরু হয়েছে জেলা পুলিশের বিট পুলিশিং কার্যক্রম। জেলার প্রতিটি উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভায় একজন করে বিট অফিসার দায়িত্ব পালন করছেন। ছোটখাটো ঘটনায় থানায় যেতে হবেনা সেবা গ্রহিতাদের। আইন-শংখলা রক্ষা সহ যে কোন সেবা পেতে যোগাযোগ করা যাবে বাড়ির পাশেই বিট কর্মকর্তাদের কাছে। আর বিট কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে তাৎক্ষনিক যে কোন ঘটনা জানানো যাবে ঘরে বসেই।

ঘরের দরোজায় সাঁটানো বিটপুলিশিং স্ট্রিকারে থাকবে সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তা, থানার ওসি ও ডিউডি অফিসারের মোবাইল নাম্বার। যে কোন প্রয়োজনে তাঁদের সহযোগিতা নিতে পারবে এলাকাবাসী।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের শোলাকিয়া বিটে বিট অফিসার ও থানার ওসির মোবাইল নাম্বার সম্বলিত স্ট্রিকার মানুষের বাড়ি বাড়ি লাগিয়ে দেয়ার মাধ্যমে জেলায় এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন, কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ, বিপিএম (বার)।
––
এ উপলক্ষে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবু বকর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. মোস্তাক সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) অনির্বাণ চৌধুরী, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আেেনায়ার হোসেন বাচ্চু, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল প্রমূখ।

পরে শোলাকিয়া এলাকায় বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি গিয়ে দরোজায় বিট কর্মকর্তাদের মোবাইল নাম্বার সম্বলিত স্টিকার লাগিয়ে দেন পুলিশ সুপার।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘ এ সেবা চালুর মাধ্যমে এলাকার মানুষ দ্রæত সময়ে পুলিশের সহযোগিতা পাবেন। এতে করে এলাকার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি ভালো থাকবে বলে আশা করছি। পুলিশের সেবাদানের সক্ষমতা ও মানসিকতা আগের যে কোন সময়ের তুলনায় বেড়েছে উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেন, ‘ দেশের সার্বিব উন্নয়ন ও অগ্রগতি ধরে রাখতে হলে যে কোন পরিস্থিতিতে এলাকার ীইিুন-শৃংখলা পরিস্থিতি ভালো রাখতে হবে।’

কিশোরগঞ্জের ১৩টি উপজেলায় ১০৮টি ইউনিয়ন ও ৮টি পৌরসভায় বিট পুলিশের মোট ১১৪ টি বিট স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিটি বিটে একজন করে উপ-পরিদর্শক দায়িত্ব পালন করবেন।

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

দৈনিক আমার বাংলাদেশ

%d bloggers like this: