হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের পরীক্ষা স্থগিত করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

সুরক্ষার কথা ভেবে করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য প্রতিষেধক হিসেবে বিতর্কিত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন ওষুধটির পরীক্ষা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। একটি অনলাইন বৈঠকে গতকাল সোমবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘সংস্থার এক্সিকিউটিভ গ্রুপ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই আপাতত স্থগিত রাখা হচ্ছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ট্রায়াল।’

সম্প্রতি একটি গবেষণায় তুলে ধরা হয়, এ ওষুধটির ব্যবহার করোনা আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে ঝুঁকি আরো বাড়িয়ে দিতে পারে। এরপরই ওষুধটির পরীক্ষা সাময়ীকভাবে স্থগিত করে ডব্লিউএইচও। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

গত সপ্তাহে, মেডিকেল জার্নাল দ্য ল্যানসেটে একটি গবেষণায় বলা হয়, করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন কোনো কাজে আসে না, বরং এটি গ্রহণের ফলে মৃত্যুর সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এদিকে, স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের সতর্কতার তোয়াক্কা না করে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের প্রচার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমনকি করোনা থেকে দূরে থাকতে তিনি এটি ব্যবহার করছেন বলেও জানান। এ ছাড়া এর আগে ম্যালেরিয়ার এ ওষুধটিকে ‘গেমচেঞ্জার’ বলেও আখ্যায়িত করেন তিনি।

গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘কতজন মানুষ এই ওষুধটি নিচ্ছে, তা জানলে আপনারা আশ্চর্য হয়ে যাবেন।’ এ ছাড়া ফ্রন্টলাইন কর্মীদের অনেকেই করোনার প্রতিষেধক হিসেবে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন নিচ্ছেন বলে দাবি ট্রাম্পের।

হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন করোনা প্রতিরোধে কাজ করে এমন কোনো প্রমাণ আছে কি না জানতে চাইলে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘এখানেই আমার প্রমাণ। আমি এর ব্যাপারে অনেক আশাব্যঞ্জক খবর পেয়েছি।’

ট্রাম্প আরো বলেন, ‘আমি এটি (হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন) সম্পর্কে অনেক ভালো খবর শুনেছি। আর যদি এটি ভালো না হয়, তাহলে আমি আপনাদের বলতে চাই, আমি এটি দ্বারা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি না।’

এরই মধ্যে হোয়াইট হাউসের বেশ কয়েকজনের করোনা পজেটিভ এসেছে, তবে ট্রাম্প বলছেন, তাঁর শরীরে করোনার কোনো উপসর্গ নেই। এবং তিনি নিয়মিতই পরীক্ষা করছেন বলে জানান।