স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চান ব্রিটনি স্পিয়ার্স

আদালতে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার আবেদন জানিয়েছেন মার্কিন পপ সঙ্গীতশিল্পী ব্রিটনি স্পিয়ার্স। বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসের একটি আদালতে হাজির হয়ে তার ১৩ বছরের কনজারভেটরশী জীবনের অবসান ঘটনাতে নাটকীয়ভাবে অনুরোধ করেন ব্রিটনি। তিনি কনজারভেটরশীপ অবস্থাকে ‘আপত্তিজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন এবং তার বাবা ও অন্যান্য যারা এটি নিয়ন্ত্রণ করছেন তাদের নিন্দা করেছেন।

ব্রিটনি বলেন, ‘আমি আমার স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাই। আমি এখানে কারো ক্রীতদাস হয়ে থাকতে চাই না। আমি আতঙ্কগ্রস্ত। আমি ভালো নেই। আমি ঠিক মতো ঘুমাতেও পারছি না। আমি খুবই বিরক্ত এবং আমি প্রতিদিন কাঁদি।’

কনজারভেটরশিপ নিয়ে লস অ্যাঞ্জেলেসের একটি সুপারিয়র কোর্টে শুনানি চলাকালে আদালতকে তিনি বলেন, ‘আমি বিয়ে করতে এবং সন্তানের মা হতে চাই। অথচ আমাকে বলা হয়েছে, কনজারভেটরশিপে থাকাকালে বিয়ে করতে কিংবা মা হতে পারব না।’

‘যেন গর্ভধারণ না করি, সেজন্য আমার শরীরের ভেতরে এখন একটি গর্ভনিরোধক ডিভাইস রয়েছে। আমি সেটি বের করে ফেলতে চাই, যেন আবারও সন্তান নিতে পাড়ি। কিন্তু এই তথাকথিত টিম আমাকে ডিভাইসটি বের করার জন্য চিকিৎসকের কাছে যেতে দিচ্ছে না; কারণ, তারা চায় না আমার সন্তান হোক,’ বলেন ‘ওপ্স… আই ডিড ইট অ্যাগেইন’ গায়িকা।

এ সময়ে এ সংক্রান্ত প্রচলিত আইন পরিবর্তনেরও দাবি তোলেন ব্রিটনি। বুধবার কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই মামলাটি মুলতবি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে আমেরিকান র‍্যাপার কেভিন ফেডারলাইনের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পর থেকে গত ১৩ বছর ধরে কনজারভেটরশিপে রয়েছেন এই পপ মেগাস্টার। ফেডারলাইনের সঙ্গে শন প্রেস্টন ও জেডেন জেমস নামে দুটি সন্তান রয়েছে ব্রিটনির। বিবাহবিচ্ছেদের পর ব্রিটনি স্পিয়ার্স মানসিক ভারসাম্য হারান। এরপর থেকেই তার জীবনযাত্রা এবং অর্থ ব্যয় একজন অভিভাবক ধারা নিয়ন্ত্রণের (কনজারভেটরশীপ) আদেশ জারি করে আদালত। বেশ কয়েক বছর ধরে বর্তমানে ২৭ বছর বয়সী ইরানি পারসোনাল ট্রেনার স্যাম আসগরির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে রয়েছেন তিনি।

Source:Daily Inquilab

%d bloggers like this: