ব্যাংকে টাকা দিতে গিয়ে ‍পুড়ল কপাল

আমার নাম বাধন সাহা আজ আমি আপনাদের বলবো কপাল খারাপ হলে কি হয়। কপাল খারাপ হলে দিনটাই যেন খারাপ যায়। আজকে রবিবার ১৩/০৬/২০২১ আমার দাদার একটা ল্যাপটপ আমাকে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আমাকে দেওয়ার কথা বলে আমাকে দেয়নি। না দেওয়ার কারণ আমি খুবই দুঃখ পেয়েছিলাম।

কপাল খারাপ

দেখুন কপাল খারাপ হলে কি না হয়। তারপর আমি আর সাগর দাদা ব্যাংকে টাকা জমা দিতে যায়। যেতে যেতে সাগর দাদা বললো আমার খুব ক্ষুধা লেগেছে। আমরা তারপরে একটি ফাস্ট ফুডের দোকানে সিঙ্গারা খেতে গেলাম। তারপর আমি দুইটা ও সাগর দাদা দুইটা খেয়েছিল। আমরা যখন খেতে গিয়েছি তার কিছুক্ষন ‍পর কারেন্ট চলে গেল এবং বৃষ্টি শুরু হল। তারপর যখন আমরা ফটোকপির দোকানে গেছিলাম তখন ও আবার কারেন্ট চলে গেল। তারপর আবার আমরা ঐ ফাস্টফুড এর দোকানে গিয়ে কিছুক্ষণ বসার পর দেখলাম কারেন্ট এসেছে। আমরা আবার ওই ফটোকপির দোকানে গিয়ে বললাম ফটোকপি করে দিন তার দুই থেকে তিন মিনিট পর আবার কারেন্ট চলে গেল আমরা ওখানে ৫ মিনিট দাঁড়িয়ে ছিলাম।

তারপর কারেন্ট চলে আসে। আমরা জলদি ভাবে ওই আইডি কার্ডের ফটোকপি করে নিলাম। তার পর পর বৃষ্টি থেমে গেলে। আমরা জলদি ভাবে ব্যাংকে গেলাম যে সাগর দাদা ৭ জনের পিছনে ছিল আর আমি একটি সোফাতে বসলাম। আর সাগর দাদা আস্তে আস্তে ২জনের পিছনে ছিল। তারপর আমি উঠে দাঁড়ালাম দেখলাম একজন চলে গেলে তারপর সাগর দাদার নাম্বার আসলো। ১৫ মিনিট পর সাগর দাদা টাকা জমা দেওয়া হয়ে গেল। তারপর আমরা হাটা শুরু করলাম আমাদের ভাগ্য টি কেমন দেখুন যে এসেছিলাম শুকনা রাস্তা দিয়ে। কিন্তু যাওয়ার সময় ভুল করে আমরা অন্য রাস্তায় ঢুকে গিয়েছিলাম তার কারণে কাঁদার মধ্য দিয়ে আসতে হয়েছিল। আমরা যখন আসছিলাম তখন খুবই বৃষ্টি হচ্ছিল এবং পায়ে প্রচুর পরিমাণে কাদা লেগে গিয়েছিল। দেখুন ভাগ্যটা কেমন সবাই বলে কপাল খারাপ হলে দিনটাই খারাপ যায়। আজ আমি ও সাগর দাদা দেখে নিলাম কপাল খারাপ হলে কি হয়।

Source: viralbd

%d bloggers like this: