শ্রমিকদের সুবিধার্থে চাঁদপুর থেকে চলছে লঞ্চ

পোশাকশ্রমিকদের ঢাকায় আসার সুবিধার্থে সীমিত সময়ের জন্য চাঁদপুর থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। এর ফলে কাজে যোগ দিতে আজ রোববার ভোর থেকে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড় লাগে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে। চাঁদপুরসহ আশপাশের জেলার হাজার হাজার যাত্রীর চাপে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় প্রতিটি লঞ্চকে নির্দিষ্ট সময়ের আগে ঘাট ছাড়তে বাধ্য করে। তাদের সহায়তা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিক্তা খাতুনের নেতৃত্বে জেলা ও নৌ পুলিশের সদস্যরা।

আজ সকাল ছয়টা থেকে সাড়ে সাতটা পর্যন্ত চাঁদপুর লঞ্চঘাটে অবস্থান করে দেখা গেছে, পোশাকশ্রমিকদের চেয়ে সাধারণ যাত্রীর চাপ ছিল বেশি। এ জন্য লঞ্চ মালিক কর্তৃপক্ষ ঢাকা থেকে অতিরিক্ত লঞ্চের ব্যবস্থা করে। এরপরও যাত্রীর চাপে সকাল ৬টার রফরফ-৭ ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে চাঁদপুর ঘাট ছাড়ে। সকাল ৭টা ২০ মিনিটের সোনারতরী সকাল সাড়ে ৬টায়, সকাল ৮টার ইগল-৭ সকাল ৭টায়, সকাল ৯টার ইগল সকাল সোয়া ৭টায় চাঁদপুর ঘাট ছেড়ে ঢাকার উদ্দেশে যায়।

ইগল লঞ্চের সুপারভাইজার আলী আজগর অভিযোগ করেন, ‘পোশাকশ্রমিকদের কথা চিন্তা করে সরকার সীমিত সময়ের জন্য লঞ্চ চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আমরা তিনটি লঞ্চ ঢাকা থেকে খালি নিয়ে আসি। কিন্তু প্রশাসনিক চাপে আমাদের লঞ্চগুলো চাঁদপুর থেকে ঢাকায় যাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট যাত্রী তোলার আগেই ঘাট ছেড়ে দিতে বাধ্য করা হচ্ছে। এতে আমাদের লোকসান গুনতে হচ্ছে।’

নৌ পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাহিদুল ইসলাম বলেন, নির্দিষ্টসংখ্যক যাত্রী ওঠার পর লঞ্চগুলো সময়ের আগেই ঘাট ছাড়া নিশ্চিত করা হয়েছে।

চাঁদপুর বিআইডব্লিউটিএর উপপরিচালক কায়সারুল আলম বলেন, ‘আমরা ভোর থেকে ঘাটে অবস্থান করছি, যাতে কোনো লঞ্চে অধিক যাত্রী না উঠতে পারেন। তা ছাড়া প্রতিটি লঞ্চে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘুরে ঘুরে দেখেন, সেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কি না।’

শ্রমিকদের সুবিধার্থে চাঁদপুর থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে

শ্রমিকদের সুবিধার্থে চাঁদপুর থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে

এদিকে ব্যতিক্রম চিত্র দেখা যায় চাঁদপুর বাস টার্মিনালে। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বাস সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে। কিন্তু ঢাকামুখী তেমন কোনো যাত্রী নেই।

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: