পরীমনি–রাজদের জব্দ গাড়ির মালিক কারা, খুঁজছে সিআইডি

চিত্রনায়িকা পরীমনি, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ ছয়জনের বাসায় অভিযান চালিয়ে জব্দ ছয়টি দামি গাড়ির প্রকৃত মালিক কারা, সে বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছে সিআইডি। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রধান মাহবুবুর রহমান এ কথা জানিয়েছেন।

রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি প্রধানের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আজ মঙ্গলবার এ কথা বলেন সিআইডি প্রধান।

আজই পরীমনির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আর প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজের ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মাহবুবুর রহমান বলেন, জব্দ গাড়িগুলোর প্রকৃত মালিক কারা, তা বিআরটিএর কাছে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। ছয়টি গাড়ির মধ্যে পরীমনির গাড়িটি টয়োটা হেরিয়ার, পিয়াসার ফেরারি ও বিএমডব্লিউ, নজরুল ইসলাম রাজের দুটি হেরিয়ার, শরিফুল হাসান ওরফে মিশু হাসানের ফেরারি গাড়ি রয়েছে।

মাহবুবুর রহমান বলেন, পরীমনি, পিয়াসা, মৌ, হেলেনা জাহাঙ্গীর, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মোট ১৫টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে আটটি মামলার তদন্ত করছে সিআইডি। পরীমনিসহ তাঁদের মধ্যে ছয়জনের বাসায় অভিযান চালিয়ে ছয়টি দামি গাড়ি, ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, মোবাইল উদ্ধার করেছে সিআইডি। জব্দ করা ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য রাসায়নিক পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে।

সিআইডি প্রধান বলেন, যাঁরা প্রতারণা করেছেন, তাঁদের অনেককেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ভবিষ্যতে আরও অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। সিআইডি শুধু মাদকের মামলাই দেখছে না। এর পাশাপাশি তাঁদের আয়-ব্যয়ের হিসাব, অর্থের উৎস, কারা দিয়েছেন, কোথা থেকে সেগুলো এসেছে, সবকিছু তদন্ত করে দেখছে।

মাহবুবুর রহমান বলেন, সিআইডি অনেক তথ্য পেয়েছে। তবে মামলা তদন্তাধীন হওয়ার কারণে তা প্রকাশ করছে না। প্রতারক চক্রের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কারও বিদেশে যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি। যদি এ ধরনের নির্দেশ দেওয়া হয়, তা পরে জানানো হবে।

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: