গণপরিবহন-দূরপাল্লার বাসে যাত্রীর চাপ কম

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুসারে রাজধানীতে আজ রোববার সকাল থেকে গণপরিবহন চলছে। ছেড়ে যাচ্ছে দূরপাল্লার বাসও। সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে যাত্রীদের তেমন চাপ লক্ষ করা যায়নি। গণপরিবহনের সংখ্যাও ছিল কম। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীর ভিড় কিছুটা বেড়েছে।

সকালের দিকে দেখা যায়, গাড়ি ও মোটরসাইকেল চলাচল অনেক বেড়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো চেকপোস্ট চোখে পড়েনি।

সকাল সাড়ে আটটার দিকে গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পাটুরিয়া ঘাট, মানিকগঞ্জ ও সাভার থেকে বিভিন্ন পরিবহনে যাত্রীরা আসছেন। গাবতলী থেকে ঢাকার অভ্যন্তরীণ রুটেও চলছে গণপরিবহন। দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, যাত্রীরা ঢাকার বাইরে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছেন।

গাবতলী বাস টার্মিনালে আবদুল্লাহ আল মামুন নামের এক যাত্রী যশোর যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তিনি বলেন, বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন তিনি। জরুরি প্রয়োজনে যশোর যাচ্ছেন। তবে কঠোর বিধিনিষেধের কারণে তিনি যেতে পারছিলেন না। হঠাৎ অল্প সময়ের সুযোগ পেয়ে তিনি সেটি কাজে লাগাচ্ছেন।

আবদুল্লাহ বলেন, ‘দুদিন ধরে চেষ্টা করেও যেতে পারছিলাম না। আজ সুযোগটা নিচ্ছি।’ যাত্রী না থাকায় তিনি টিকিট কেটে বসে আছেন। এসডি পরিবহনের গাড়ি কখন ছাড়বে তিনি জানেন না।

দিগন্ত পরিবহনের কাউন্টারম্যান আবদুল করিম সকালের দিকে জানান, যাত্রী খুবই কম। সকাল থেকে বাগেরহাটে একটি এবং কোটালীপাড়ার উদ্দেশে একটি বাস ছেড়ে গেছে।

সকাল পৌনে নয়টার দিকে গাবতলীতে কথা হয় ঢাকার অভ্যন্তরীণ রুটে চলা গাবতলী এক্সপ্রেসের চালকের সহকারী মো. শরীফের সঙ্গে। তিনি বলেন, রাস্তায় যাত্রী নেই। সকালে যাত্রাবাড়ীতে দেড় ঘণ্টা অপেক্ষার পর যাত্রী পান। গাবতলীতে এসেও দীর্ঘ সময় ধরে যাত্রীর অপেক্ষায় আছেন তাঁরা। ভাড়া আগের মতোই নিচ্ছেন বলে জানান তিনি।

পাটুরিয়া ঘাট থেকে আসা ঠিকানা পরিবহনের চালক ইমামুল হক প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল শনিবার রাতে যাত্রী বেশি ছিল। অল্প সময় গাড়ি চলাচলের কারণে আজকে ভাড়া একটু বেশি নেওয়া হচ্ছে।

ওই বাসের যাত্রী মো. সুমন বলেন, তিনি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। পাটুরিয়া থেকে গাবতলী পর্যন্ত ১০০ টাকার ভাড়া নিয়েছে ২০০ টাকা।

সকাল সাড়ে সাতটা থেকে সাড়ে নয়টা পর্যন্ত রাজধানীর মহাখালী, তেজগাঁও, আসাদগেট, শ্যামলী, গাবতলী, সায়েন্স ল্যাব, শাহবাগ, পল্টন ও গুলিস্তান এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে গণপরিবহন তেমন চলছে না। তবে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা অনেক বেশি।
সকাল সাড়ে নয়টার দিকে গাজীপুরগামী আজমেরী পরিবহনের যাত্রী শহীদুল হক বলেন, বাসে শুধু গাজীপুরের যাত্রী তোলা হচ্ছে। ভাড়া ১০০ টাকা। ওই বাসের চালকের সহকারী মো. আনিস বলেন, ‘কিছুই করার নেই। ১২টা পর্যন্ত বাস চলবে। একবারই যাওয়া সম্ভব। এ কারণেই রিজার্ভ যাত্রী নিচ্ছি।’

পবিত্র ঈদুল আজহার পর গত ২৩ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ বিধিনিষেধ থাকবে ৫ আগস্ট পর্যন্ত। তবে ব্যবসায়ীদের অনুরোধে বিধিনিষেধের মধ্যেই আজ থেকে শিল্পকারখানা চালুর অনুমতি দেয় সরকার। গত শুক্রবার এ খবর প্রকাশের পর দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ঢাকার পথ ধরেছেন শ্রমিকেরা। শ্রমিকদের ঢাকায় আসার সুবিধার্থে বাস ও লঞ্চ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় আজ সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত গণপরিবহন চলার কথা।

Source: Prothomalo

 

%d bloggers like this: