পুলিশ দেখে তরুণের নদীতে ঝাঁপ, দুই দিন পর মিলল লাশ

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় পুলিশ দেখে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে এক তরুণ নিখোঁজ হন। দুই দিন পর তাঁর লাশ পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে কালীগঞ্জের বড়িহাটি এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

লাশ উদ্ধার হওয়া ওই তরুণের নাম রাব্বি হাসান (২০)। তিনি কালীগঞ্জ উপজেলার টিউরি এলাকার খোকন মিয়ার ছেলে। স্বজনদের দাবি, রাব্বিকে পিটিয়ে ও পানিতে চুবিয়ে হত্যার পর নদীতে ডুবিয়ে দেওয়া হয়েছে।পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে জাহাজের ওপরে বসে মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে মুঠোফোনে গেমস খেলছিলেন রাব্বি হাসানসহ কয়েকজন তরুণ। এ সময় কালীগঞ্জ থানার এসআই শহিদুল ইসলাম ও এএসআই আবদুল সামাদ ওই জাহাজে অভিযান চালান। পুলিশ দেখে রাব্বি হাসানসহ কয়েকজন শীতলক্ষ্যা নদীতে ঝাঁপ দেন। এরপর থেকেই রাব্বি নিখোঁজ। পরে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে খোঁজাখুঁজি করে তাঁর কোনো সন্ধান পায়নি। পরে আজ সকালে ভাসমান অবস্থায় তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক বলেন, ১৫ থেকে ১৬ জন তরুণ ও যুবক বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে নোঙর করা জাহাজে মাদক বেচাকেনা করছেন, এমন সংবাদ পেয়ে কালীগঞ্জ থানা-পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময়ে কয়েকজন নদীতে ঝাঁপ দেন। পরে সবাই উঠে এলেও রাব্বি স্রোতে ভেসে যান।

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: