কুষ্টিয়ায় ভাতিজার বিরুদ্ধে চাচাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ভাতিজার বিরুদ্ধে চাচাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এক গৃহবধূসহ দুজন আহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার সিরাজনগর রিফিউজিপাড়া গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম রিয়াজ উদ্দিন খাঁ (৭০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, তাজিয়া মিছিলের নেতৃত্ব নিয়ে গতকাল সন্ধ্যায় বর্তমান ইমাম রিয়াজ উদ্দিন খাঁর সঙ্গে ভাতিজা দিরাজ উদ্দিন খাঁর বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ভাতিজা দিরাজ ক্ষুব্ধ হয়ে চাচা রিয়াজের ওপর হামলা চালান। ধারালো রামদা দিয়ে তাঁকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন দিরাজ। রিয়াজ মারা যান। এ সময় আরেক ভাতিজা স্বপন (৪৫) ও ভাতিজার স্ত্রী আর্জিনা খাতুন (৩৫) রিয়াজকে বাঁচাতে গেলে তাঁদেরও কুপিয়ে জখম করা হয়। তাঁদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে গেলে দিরাজ দ্রুত পালিয়ে যান।

এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা–পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশ রিয়াজ উদ্দিনের লাশের সুরতহাল শেষে রাতে দৌলতপুর থানায় নেয়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

হামলায় আহত স্বপনকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল ও আর্জিনা খাতুনকে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তবে ঘটনার সঙ্গে জড়িত দিরাজ উদ্দিন খাঁকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, তাজিয়া মিছিলের ইমাম নির্বাচন নিয়ে চাচা–ভাতিজার মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, ভাতিজা দিরাজ ধারালো অস্ত্র দিয়ে চাচা রিয়াজকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা হবে।

Source: Prothomalo

%d bloggers like this: