পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতাল ভুল চিকিৎসায় নিভে গেল যুবকের জীবন প্রদীপ!

নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় মিলন (২৫) নামে দিনমজুর এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। মিলনের পরিবারের অভিযোগ পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালের মালিক ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারীর ভুল চিকিৎসায় মিলনের মৃত্যু হয়েছে। ভুল চিকিৎসার কারনে প্রায় ৮ মাস রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে দিনমজুর ওই পরিবারকে সর্বশান্ত হতে হয়েছে। মিলনের বাবা-মা ও স্ত্রীসহ এলাকাবাসী মিলনের ভুল চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী কাছে ডাঃ পাটোয়ারী হাসপাতালের সত্বাধিকারী ডাঃ পাটোয়ারীর বিচার দাবী করেছেন। মিলন বড়াইগ্রাম উপজেলার চান্দাই ইউনিয়নের চান্দাই গ্রামের আকবর প্রামানিকের ছেলে
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, বড়াইগ্রাম উপজেলার চান্দাই গ্রামের হতদরিদ্র যুবক দিন মজুর মিলন পেটের যন্ত্রণা নিয়ে গত ১৫ আগষ্ট বনপাড়া পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়। শরীরের নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে ১৬ আগষ্ট পরদিন রাতে হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী আওয়ামীলীগ নেতা বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান ডাক্তার সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী ও ডাক্তার মাহবুবুর রহমান তার হার্নিয়া অপারেশন করেন। কিন্তু ওই অপারেশন করার পরও পেটের যন্ত্রনা থামেনা মিলনের। তার অবস্থার আরও অবনতি হলে ১৯ আগষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিলে মিলনকে রাজশাহী নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকরা মিলনের ভুল চিকিৎসা করা হয়েছে বলে জানান। এই খবরে গ্রামের মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। বিষয়টি পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানালেও তারা কোন কর্ণপাত করেননি বলেও অভিযোগ তুলেছেন এলাকাবাসী। এদিকে দীর্ঘদিন চিকিৎসা করেও মিলনের কোন উন্নতি না হওয়ায় পাটোয়ারী জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষসহ চিকিৎসকের বিচার দাবী করে এলাকাবাসী এলাকায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে।
এদিকে এলাকাবাসীর সহায়তায় দীর্ঘদিন ধরে চালানো হয় মিলনের চিকিৎসার খরচ। গত চারদিন আগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে মিলনকে ছেড়ে দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এলাকাবাসীর ভালবাসা পেলেও বুধবার না ফেরার দেশে চলে যায় মিলন। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী অভিযোগ করেছেন, পাটোয়ারী হাসপাতালের ভুল চিকিৎসার কারনে মিলনের মৃত্যু হয়েছে।
পাটোয়ারী হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী ও জনপ্রতিনিধি ডাক্তার সিদ্দিক পাটোয়ারী মিলনের হার্নিয়া বাম পাশের অপারেশনের সত্যতা স্বীকার করে জানান, এই অপারেশন সম্পন্ন পেটের বাহিরে । নাড়ির সাথে এর কোন সম্পৃক্ততা নেই। পরবর্তীতে রোগীর পক্ষে কেউ এবিষয়ে কিছুই জানায়নি বা হাসপাতালে তারা আর আসেননি। যেহেতু তিনি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন তাই ধারনা করছেন রাজনৈতিকভাবে হেয় করতেই এমন অভিযোগ তোলা হচ্ছে।
বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) শাহরিয়ার খান জানান,থানায় এধরনের কোন অভিযোগ করেনি কেউ।