নাটোরে সৌদি প্রবাসী অপহরণের অভিযোগে নারীসহ আটক ৩

নাটোর প্রতিনিধি:নাটোরে অপহরণের ৭ ঘন্টা পর পুলিশ জসিম উদ্দিন (৪০) নামে অপহৃত এক সৌদি প্রবাসীকে উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সদর থানার পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে সদর উপজেলার দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের তেগাছি এলাকা থেকে অপহৃত জসিমকে উদ্ধার করে।
অপহরনের সাথে জড়িত সন্দেহভাজন নারীসহ ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ । আটককৃতরা হলো সদর উপজেলার বাকসোর গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে আব্দুল লতিফ (৩৪),পুর্ব হাগুরিয়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের স্ত্রী রেবা খাতুন (২৫) ও একই গ্রামের মৃত মোহম্মদ আলীর ছেলে মলিন হোসেন (২৬)।
পুলিশ ও অপহৃতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার হালসা ইউনিয়নের বাগরুম গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে সৌদি প্রবাসী জসিম উদ্দিন ৫ মাস আগে দেশে আসে। বৃহস্পতিবার বিকেলে মোবাইল ফোনে এক নারী ফোন করে জসিম উদ্দিনকে নাটোর শহরে ডেকে নেয়। সন্ধ্যার দিকে শহরের মাদরাসা মোড় এলাকায় অবস্থান করার সময় ওই নারী তাকে ডেকে নিয়ে অপহরন করে দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের তেগাছি এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে যায়। এসময় অপহরনচক্র তার কাছে ৪লাাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে।
পরে পরিবারের লোকজন অপহরণকারীদের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে মুক্তিপণের টাকা কমানোর জন্য বললে তা কমিয়ে ২লাখ টাকা দাবী করা হয়। বিষয়টি বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশকে জানালে সদর থানার পুলিশ মোবাইল ট্রাকিং এর মাধ্যমে অবস্থান জানতে পেরে আব্দুল লতিফকে আটক করে। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের তেগাছি এলাকা থেকে অপহৃত সৌদি প্রবাসী জসিমকে উদ্ধার করে। পুলিশের তৎপরতা আঁচ করতে পেরে আগেই জসিমকে নিয়ে তেগাছির একটি রাস্তায় অবস্থান করার সময় পুলিশ জসিমকে উদ্ধার করে। অপহরণ চক্রের অপর দুই সদস্য রেবা খাতুন ও মলিনকে আটক করে পুলিশ।
নাটোর সদর থানার অফিসার (ওসি) সিকদার মশিউর রহমান জানান, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন জানানো হবে।