অনুমোদন ছাড়াই গণপূর্ত্যরে কোর্ট ভবন ভাংছেন শালিখার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিরাজ হোসেন

শালিখা(মাগুরা)প্রতিনিধিঃ শালিখা উপজেলা পরিষদের অভ্যন্তরে পুরনো কোর্ট ভবণ যার প্রকৃত মালিক গণপূর্ত বিভাগ। কোর্ট বিলপ্তির পর ইহা সাব-রেজিষ্ট্রি ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয় হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে। সম্প্রতি প্রকল্প কর্মকর্তা মিরাজ হোসেন খান উপজেলা পরিষদ বা গণপূর্তের কোন প্রকার অনুমোদন ব্যতীত ভবনের একাংশ ভেঙ্গে ডিজাইন পরিবর্তন পূর্বক আধুনিকতার কার্যক্রম শুরু করেছেন। নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে তিনি দম্ভের সাথে সরকারি ভবনটি ভাঙ্গার কাজ শুরু করেছেন। এব্যাপারে ২৩ মার্চ দুপুর ১২টার দিকে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উক্ত ভবনটি ভাঙ্গার কাজ খুব তড়িঘড়ি গতিতে চলছে। এ ব্যাপারে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার মুঠো ফোনে কল করে ভবন ভাঙ্গার জন্য গণপূর্ত্যের অনুমোদন নিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে তিনি সন্টোষ জনক জবাব না দিয়ে ব্যস্ত আছেন বলে ফোনটি কেটে দেন। তবে গণপূর্ত্যরে জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী প্রদীপ কুমার বসুর সাথে মোইল ফোনে কথা বললে তিনি বলেন শালিখা উপজেলার পুরনো কোর্ট ভবণ ভাঙ্গার বিষয়টি আমি জানিনা। আপনার কাছ থেকেই প্রথম শুনলাম। ভবন ভাঙ্গার অনুমোদন আমরাও দিতে পারিনা। ভবন ভাঙ্গতে গেলে গণপূর্ত্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন নিতে হবে। যদি প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিরাজ হোসেন ভবন ভাঙ্গার কাজ শুরু করে থাকেন, তা হলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।