রাঙ্গুনিয়ায় আ’লা হযরত স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

রাঙ্গুনিয়া সংবাদদাতা : রাঙ্গুনিয়া পৌরসভার দক্ষিণ নোয়াগাঁও ফকিরখীল আ’লা হযরত স্মৃতি বৃত্তি পরীক্ষা সংগঠনটির ব্যবস্থাপনায় শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) দক্ষিণ নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ১০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দেড়শ মেধাবী ছাত্র-ছাত্রী। পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্র পরিদর্শন করেন পৌরসভার কাউন্সিলর নুরুল আবছার জসিম, শিক্ষানুরাগী আব্দুল সবুর, আবু নাছের, অধ্যাপক মো. ইসমাইল, অধ্যাপক খাইয়েজ আহমদ, রেজাউল করিম, মঞ্জুরা বেগম, আব্দুল হালিম তালুকদার, মো. আনোয়ার, মুকুন্দ পাল, শফিকুল ইসলাম, ছালে জহুর প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্র সচিব মাওলানা লিয়াকত আলী, পরিচালনা কমিটির ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল হোসেন, সৈয়দ নুরুল আজিম, হেলাল হোসেন, গিয়াস উদ্দিন, এম.কে মাসুদ, ইঞ্জিনিয়ার জিল্লুর রহমান সাকিল, মিজানুর রহমান, আমিনুল ইসলাম, ইমামুর নূর রানা, সৈয়দ নুরুল ইসলাম প্রমুখ।।

কাপ্তাইয়ে উচ্ছেদ অভিযানকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ: এমডির অপসারন দাবি

রাঙ্গুনিয়া সংবাদদাতা : রাঙামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনায় অবস্থিত এশিয়ার বিখ্যাত কর্ণফুলী পেপার মিলস (কেপিএম) এলাকাতে অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিকদের উচ্ছেদ অভিযানকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মিছিলে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের শতশত নারী পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। বিক্ষোভ মিছিল শেষে আগামী তিন দিনের মধ্যে কেপিএম এর এমডির পদত্যাগ দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুল আলমের কাছে প্রদান করেন আন্দোলনকারীরা।
কেপিএম উচ্ছেদ অভিযান প্রতিরোধ নাগরিক কমিটির আয়োজনে গত বৃহস্পতিবার বিকালে কেপিএম এলাকা হতে উচ্ছেদ অভিযান বন্ধকরনের দাবীতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন দাবী জানান রাঙামাটি জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মফিজুল হক।
তিনি বলেন, ‘অবসর প্রাপ্ত শ্রমিক কর্মচারীরা যারা বিগত ২-৩বছর যাবত তাদের সমুদয় বকেয়া না পেয়ে হন্ন হয়ে ঘুরছে, কিন্তু কেপিএম কর্তৃপক্ষ তাদের পাওনাদাবী পরিশোধ না করে তাদের কেপিএম হতে বিতারিত করার পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। আজ (বৃহস্পতিবার) হতে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। গত ৪মাস যাবত এলাকায় পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত বৈদ্যুতিক সংযোগ প্রদান ও বসবাসরতদের উচ্ছেদের ক্ষেত্রে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের প্রত্যাহার করতে হবে। মামলার রায় হলে পরে আমরা ভেবে দেখবো, এই মুহুর্তে উচ্ছেদ অভিযান বন্ধের দ্রুত দাবী জানাচ্ছি।’
বিক্ষোভ মিছিল শেষে সমাবেশে চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার ইসলাম বেবির সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত বিকাশ তনচংগ্যা, উচ্ছেদ অভিযান প্রতিরোধ নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক ইসমাইল ফরিদ প্রমুখ।

 

 

এই বিষয়ে জানতে চাইলে কেপিএম এর জিএম (প্রশাসন) জাহাঙ্গীর হোসেন খান জানান, ‘বর্তমানে কেপিএমএ চাকুরিরত আছে ৬ শত শ্রমিক। কিন্তু কেপিএম এলাকায় বসবাস করে ২২ শত পরিবার। গত মাসে কেপিএম কর্তৃপক্ষ গ্যাস বিদ্যুৎ বাবদ ৭৮ লাখ টাকা প্রদান করেছে। যা দিয়ে শ্রমিক কর্মচারীদের বকেয়া প্রদান করা যেতো। বিসিআইসি কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।’ এই বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে আগে অবহিত করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।