বিক্ষোভ-সমাবেশ হয়নি রাঙ্গুনিয়ায় : মিষ্টিমুখ আনন্দ মিছিল করে আ’লীগের উল্লাস

 রাঙ্গুনিয়া সংবাদদাতা : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাজার রায়ের প্রতিবাদে শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) জুমার নামাজের পর জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের ডাক দিয়েছিল দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিন্তু কেন্দ্র ঘোষিত এই কর্মসূচি বিক্ষোভ মিছিল পালিত হয়নি রাঙ্গুনিয়ায়। এছাড়াও শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সারাদেশের সমাবেশ করার কর্মসূচিতেও রাঙ্গুনিয়ায় কোন কমূসূচি অনুষ্ঠিত হয়নি। এদিকে বিএনপির নেতৃবৃন্দরা যখন ছন্দহারা ঠিক সেই মুহুর্তে আনন্দ উল্লাস করেছে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। শুধু উল্লাসই নয়, বিএনপি এই দুইদিনের কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে তৃতীয় দিনের মতো সতর্ক অবস্থানেও ছিলেন তারা। তৃতীয় দিনেও রাঙ্গুনিয়ার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মোতায়ন ছিল পুলিশ।
এই ব্যাপারে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির একাংশের সভাপতি অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন বাহার বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরে রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপি নেতাদের ঘরে ঘরে পুলিশি তল্লাশির নামে হয়রানি করা হচ্ছে। এছাড়াও দলীয় অনেক নেতাকর্মীকেও আটক করেছে পুলিশ। অতিতে রাঙ্গুনিয়ায় কোন কর্মসূচি পালনের সুযোগ দেওয়া হয়নি। উল্টো কর্মসূচি পালন করতে চাইলে মামলা হামলার শিকার হতে হয়েছে। তাই কেন্দ্রিয় এই কর্মসূচি দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীতে জেলার নেতাদের সাথে একসাথে পালন করছি।’
এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার কারাদন্ডের রায় আসার পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপিকে ঠেকাতে মাঠে থাকা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আনন্দ মিছিল করেছেন। বিভিন্ন পয়েন্টে জমায়েতে আওয়ামী লীগ নেতারা পরস্পরকে মিষ্টি খাইয়ের আনন্দ প্রকাশ করেছেন।
উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন রিয়াজ বলেন, ‘এতিম তহবিলের টাকা সরিয়ে খালেদা যে পাপ করেছেন তার শাস্তি তিনি পেয়েছেন। বিএনপির নাশকতা এড়াতে আওয়ামীলীগের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকলীগও জনগণের জান মালের নিরাপত্তার স্বার্থে মাঠে ছিল।’
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার (ভারপ্রাপ্ত) বলেন, ‘রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপি দ্বিধাবিভক্ত হয়ে নিজেদের মেরুদন্ড নিজেরাই ভেঙ্গেছে। তাই তারা কোন কর্মসূচি সফল করতে পারছেন না। নিজেদের ব্যর্থতার জন্য অন্যকে দায়ী করা বিএনপির স্বভাব।’
রাঙ্গুনিয়ার থানার ওসি ইমতিয়াজ মো. আহসানুল কাদের ভূঞা বলেন, ‘রাঙ্গুনিয়ার পরিস্তিতি শান্ত রয়েছে। কোনরকম নাশকতা যেন না হতে পারে সেইজন্য সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া বিনা কারণে কাউকে হয়রানী কিংবা আটক করা হয়নি।’