বান্দরবানে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৮ পালিত

উথোয়াইচিং মারমা; বান্দরবান প্রতিনিধি: “বই পড়ি স্বদেশ গড়ি” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ ও জেলা সরকারী গ্রন্থাগার আয়োজনে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৮ পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সকালে জেলা শিশু একাডেমী হতে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জর্জ কোর্টের পার্শ্বে অবস্থিত সরকারী গ্রন্থাগারে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে দিবসটির উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা সরকারী গ্রন্থাগার কনভেনিং কমিটির আহ্বায়ক সিংইয়ং ¤্রাে এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ক্য সা প্রু। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নুরুল আবছার, পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য থোয়াইহ্লামং,ক্যান্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক মোঃ ইয়াকুব হোসেন,জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি সীমা দাশ,বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বান্দরবান পৌর শাখার সভানেত্রী নীলিমা আক্তার নীলা,সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব ও নাটাব বান্দরবানের সাধারণ সম্পাদক এম এ মোমেন চৌধূরী,বান্দরবান জেলা গ্রন্থগারের দায়িত্বপ্রাপ্ত লাইব্রেরীয়ান মাসুইথুই চাক, প্রতিবন্ধি¦ কল্যাণ সংস্থা(প্রকস) এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক জর্জ ত্রিপুরা,সহ সরকারী বেসরকারী কর্মকর্তাসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। সভায় বক্তারা বলেন,আজ জাতীয় গ্রন্থগার দিবস,সারা দেশের ন্যায় বান্দরবানেও গুরুত্ব সহকারে এই দিবসটি পালিত হচ্ছে। সমগ্র বিশ্বে বই/গ্রন্থগারের ভূমিকা অপরিসীম,গ্রন্থগারের বই এর জ্ঞানের ভান্ডার হতে জ্ঞান আহরণ করা ছাড়া কোন ব্যাক্তি তার জীবনে উন্নতি করতে পারে নাই,বর্তমান যুগের ছেলে মেয়েরা সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইস বুক,ইন্টারনেটে সময় বেশী ব্যয় করছে,সেই তুলনায় গ্রন্থগার বা লাইব্রেরীতে সময় কম ব্যয় করছে,যার ফলে বর্তমানে শিক্ষার্থীরা প্রকৃত শিক্ষা বা পূর্ণাঙ্গ শিক্ষা গ্রহণ করা থেকে পিছিয়ে পড়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। আসুন আমরা সকলে একটু সচেতন হয়,আমাদের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজম্মকে বই পড়ার প্রতি আগ্রহ জাগ্রত করি,তাহলে তারা সমাজের ভাল মন্দ ন্যায় অন্যায়,বড়দের ও গুরুজনদের সম্মান শ্রদ্ধা ছোটদের ¯েœহ করতে শিখবে,সমাজে শৃংখলা ফিরে আসবে,সুন্দর সমাজ বিনির্মানে বর্তমান প্রজম্মই ভূমিকা রাখবে এই প্রত্যাশা সকলের। পরে সভাপতি উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।