দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে বই পড়া প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় পর্বের উদ্বোধন

ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) থেকে শহিদুল ইসলাম আকাশ ঃ  মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিার্থীদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানতে ও পাঠ্যাভাস এবং মাদক থেকে দূরে রাখতে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার টি,এম,এ মমিনের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে গতকাল বৃহস্পতিবার বলাহার হাইস্কুলে দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতার জন্য বই বিতরণের উদ্বোধন করা হয়েছে। বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত মোট ৪৯৫ জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ২২ প্রকার বিভিন্ন লেখকের বই দেয়া হয়। এ প্রতিযোগিতার নিয়ম অনুযায়ী একটি বই ১জন ছাত্র-ছাত্রী ৭ দিন পড়ার পর সে একটি সাদা কাগজে বইটি পড়ে কি বিষয় জানতে পারলেন তার সারাংশ লিখে রাখবে। এছাড়া একই কাগজে ওই ছাত্র-ছাত্রী অভিজ্ঞতা অর্জন করল তাও লিপিবদ্ধ করবে। তার বইটি পড়া শেষ হলে কাসের অপর ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট থেকে অন্য একটি বই গ্রহন করবে। একইভাবে সে ২২ প্রকার বই পড়বে এবং সারাংশ সহ অভিজ্ঞতা লিখে নির্দেশিকার মত কাগজ গুলো জমা দিবে। বই পড়া প্রতিযোগিতার প্রথম পর্যায়ের তিনটি বিদ্যালয়ের সমাপ্ত হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ৪টি বিদ্যালয় যথাক্রমে বলাহার উচ্চ বিদ্যালয়, গোপালপুর শহীদ রশিদ চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়, চাটশাল উচ্চ বিদ্যালয় ও ওসমানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

 

সংসার করতে ঘোড়াঘাটে স্বামীর বাড়ীতে স্ত্রীর ২দিন ধরে অনশন
ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) থেকে শহিদুল ইসলাম আকাশ ঃ
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে প্রেম করে বিয়ে করে দীর্ঘ এক বছর ভাড়া বাসায় ঘর সংসার করার পর স্বামীর পিত্রালয়ে ঘর সংসার করতে ২দিন ধরে অনশন করে বসে আছে পলাশের স্ত্রী সিরাজগঞ্জ জেলার উল্যাপাড়া উপজেলার বাল্লোপাড়া গ্রামের সুনিল হাওলাদারের কন্যা রিয়া হাওলাদার (১৯)। ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, গত ২০১৭ সালের প্রথমের দিকে দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার শ্যামপুর কলেজপাড়া গ্রামের শ্রী প্রফুল্ল দাসের পুত্র শ্রী পলাশ দাসের সাথে ফেইসবুকে পরিচয়। এরপর প্রেম ও গত ১১/০৪/২০১৭ তারিখে একটি এফিডেভিট ও হিন্দু রীতিনীতি অনুযায়ী পলাশ মেয়েকে বিবাহ করে। এরপর পলাশ দিনাজপুরে নিউ টাউনে একটি বাসা ভাড়া করে সেখানে ঘর সংসার করে। প্রায় দু’মাস পূর্বে রিয়া পলাশকে চাপ দেয় যে তাকে তার শ্বশুর বাড়ীতে নিয়ে যাওয়া হোক। এই চাপের মুখে রিয়াকে ফেলে রেখে এসে নিজ বাড়ীতে থাকে। এক পর্যায়ে রিয়া একমাস পূর্বে ঘোড়াঘাট থানায় একটি অভিযোগ করে। অভিযোগে থানা পুলিশ পলাশ সহ প্রফুল্লকে ডেকে পাঠায়। এ সময় প্রফুল্ল ৭ দিনের সময় নিয়ে আসে। গত ২১ ফেব্র“য়ারী পুনরায় পুলিশ প্রফুল্ল ও তার ছেলেকে ডেকে পাঠালে পলাশ থানায় না গিয়ে প্রফুল্ল দাস পুলিশকে জানায় তাকে বাড়ীতে তুলবে না। এর বিনিময়ে টাকায় মিমাংসা করতে চায়। কিন্তু রিয়া হাওলাদার টাকায় মিমাংসাতে রাজী না হয়ে গত ২১ ফেব্র“য়ারী থেকে ২দিন ধরে প্রফুল্লর বাড়ির গেটের সাথে অনাহারে অনশন করে বসে আছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে প্রফুল্লর বাড়ির মেইন গেট বন্ধ। তবে পিছন দিকে একটি গেট দিয়ে সে চলাফেরা করছে। এ ব্যাপারে ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুল ইসলাম কাগজপত্র মোতাবেক বিয়ের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করেন এবং উভয় পরে পরিবারের লোকজনকে নিয়ে সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

 

ঘোড়াঘাটে মাতৃভাষা দিবস পালিত
ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) থেকে শহিদুল ইসলাম আকাশ ঃ
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার টি,এম,এ মমিন, পৌর মেয়র আব্দুস ছাত্তার মিলন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুর রাফে খন্দকার সাহানশা, ঘোড়াঘাট থানার অফির্সা ইনচার্জ আমিরুল ইসলাম, ঘোড়াঘাট উপজেলার কৃষক লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম আকাশ, উপজেলা যুব লীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম মন্ডল, যুগ্ম আহ্বায়ক নিরুপ কুমার সাহা, ছাত্রলীগ সভাপতি ফিরোজ কবির, রাণীগঞ্জ হাইস্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্য মহিউদ্দিন, বলাহার হাইস্কুলের প্রধান শিক আনসার আলী, রাণীগঞ্জ ন্যাশনাল প্রি-ক্যাডেট স্কুলের পরিচালক হাফিজুর রহমান সহ আরো অন্যান্য প্রতিষ্ঠান।