গাবতলীতে ব্যাপক উৎসব উদ্দিপনায় ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলা সম্পন্ন

আল আমিন মন্ডল (বগুড়া) থেকেঃ গতকাল বুধবার ব্যাপক উৎসব উদ্দিপনায় মধ্যে দিয়ে বগুড়ার গাবতলী ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলা সম্পন্ন হয়েছে। মেলাকে ঘিরে উত্তরাঞ্চলসহ বগুড়া জেলা ও গাবতলী উপজেলা জুড়ে ছিল ব্যাপক উৎসবের আমেজ ও সবার ঘরে ঘরে ছিল আনন্দ হাসিখুশি’র বাৎসরিক ‘পোড়াদহ মেলা উৎসবের দিন’। মেলা চত্ত্বর এলাকায় আজ হবে বউ মেলা।
জানা যায়, বগুড়ার গাবতলী মহিষাবান ইউনিয়নের গোলাবাড়ী বন্দরের পূর্বধারে গাড়ীদহ নদী ঘেষে পোড়াদহ নামক স্থানে সন্ন্যাসী পূঁজা উপলে ১দিনের জন্য ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলা গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। মেলাটি প্রতিবছরের বাংলা সনের মাঘ মাসের শেষ বুধবার অথবা ফাল্গুন মাসের প্রথম বুধবার হওয়ার কথা থাকলেও ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলামের কারণে এবার তার ব্যতিক্রম ঘটিয়ে নির্ধারিত দিনের এক সপ্তাহ পর গতকাল বুধবার মেলাটি অল্প জায়গায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবুও এ বছরে অন্যস্থানে অল্প জায়গায় মেলাটি উদযাপিত হলো। মেলাকে ঘিরে উৎসব আমেজে মেতে উঠেছিল আশপাশের গ্রামের সর্বস্তরের মানুষ। ১দিনের মেলা হলেও উৎসব চলে সপ্তাহ জুড়ে। মেলায় হাজার-হাজার মানুষের সমাগম ঘটেছিল। এলাকাবাসী জানান, প্রায় ৫’শ বছর পূর্ব থেকে মেলাটি উদযাপিত হয়ে আসচ্ছে। ঈদ বা অন্য কোন উৎসবে মেয়ে-জামাইকে দাওয়াত না দিলেও পোড়াদহ মেলায় দাওয়াত দিয়ে ধুমধাম করে খাওয়াতে হয় যা রেওয়াজে পরিণত হয়েছে। এবারের মেলার মূল আকর্ষণ ছিল দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রজাতির বড় মাছ, কুল (বরই) ও কাঁঠের তৈরি ফার্নিচার। বিক্রি হয়েছে হাজার হাজার মন হরেক রকমের ছোট-বড় মিষ্টি। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের আসবাবপত্র, কৃষি সামগ্রী ও খাদ্যদ্রব্য হাট-বাজারের আগের মতই বেচা-কেনা হয়েছে। মেলায় নানা রকমের বিনোদনের ব্যবস্থা ছিল। কাঁঠ-বাশঁ ও মাটির তৈরী পুতুল-খেলনা ও বেলুন’সহ হরেক রকমের জিনিস বিক্রি হয়েছে বেশী। সবার সমাগমে জমে উঠেছিল পোড়াদহ মেলা। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মেলায় আগত দর্শনার্থীদের ভীড় ছিল চোখে পড়ার মত। মেলা’য় হিজরা’দের সমাগম ছিল আগের মতই। ফলে উপস্থিত অর্ধশতাধিক হিজরা’দের জন্য ছিল ‘পোড়াদহ উৎসব মেলা’। এ বছরে মাছের আমদানি ছিল বেশী। বগুড়ার আব্দুল কাসেম মৎস্য আড়ৎ এর দোকানে একটি ১শ কেজী ওজনের বার্গার মাছ (১হাজার ২শ টাকা) প্রতিকেজী দরে মোট ১লক্ষ ২০হাজার টাকা দাম চাওয়া হয়েছে। তবে ৫০কেজী থেকে ১শ ২০কেজী পর্য়ন্ত মাছ মেলা বেশী উঠেছিল। মেলায় আইন-শৃঙ্খলা রার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। মেলার প্রধান আয়োজক ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম জানান, এবছরে পোড়াদহ মেলা বাঁধ্য হয়ে অন্যস্থানে আয়োজন করতে হয়েছে। তবে প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় পোড়াদহ মেলা সু-শৃঙ্খলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এ বিষয়ে গাবতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ মনিরুজ্জামান জানান, মেলা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহযোগিতা ছিল। ফলে ব্যাপক উৎসহ উদ্দিপনার মধ্যে দিয়ে মেলাটি উদযাপিত হয়েছে। গাবতলী মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খায়রুল বাসার জানান, পোড়াদহ মেলায় আইনশৃঙ্খলা রায় কঠোর অবস্থানে ছিল পুলিশ। সন্ধ্যা ৬টা’য় এ রির্পোট লেখা পর্য়ন্ত কোন অপ্রতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

গাবতলীতে বিএনপির
উদ্যোগে অনশন কর্মসূচী
পালিত
আল আমিন মন্ডল (বগুড়া) থেকেঃ কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশহিসেবে গতকাল বুধবার গাবতলী থানা ও পৌর বিএনপি-অঙ্গদল উদ্যোগে দলীয় কার্যালয় সামনে থেকে অনশন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও গাবতলী থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক মোরশেদ মিল্টন, পৌর বিএনপির সভাপতি ডাঃ ছাবেদ আলী, যুগ্ম সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আতোয়ার রহমান, প্যানেল মেয়র মতিয়ার রহমান মতি, তাজুল ইসলাম, কাউন্সিলর আফছার আলী মিজু, বিএনপি নেতা আবুল হোসেন মোল্লা, আশরাফ হোসেন, অধ্যাপক মফিদুল ইসলাম, মতিয়ার রহমান মতি, মোমিনুল হাসান মমিন, টিপু, মিজানুর রহমান হিলু, ফিরোজ মন্ডল, মনিরুজ্জামান ফারুক, আবু তাহের, সোহেল বিন মাজেদ, গাবতলী থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম বজলু, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক তরিকুল ইসলাম, যুবদল নেতা আবু নাহিদ কবির, ইঞ্জিনিয়ার মহিদুল ইসলাম, নিপুন, গাবতলী থানা ছাত্রদলের সভাপতি রুহুল হাসান রুহিন, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি আনোয়ার হোসনে, ছাত্রদল নেতা পবন সরকার, নাবিব, এসএম রাসেল, সোহাগ, শুভ, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা মোস্তফা কামাল কনক, মৎস্যজীবি দল নেতা বাবু, কৃষকদল নেতা আতিয়ার রহমান, শ্রমিকদল নেতা আনিছার প্রমূখ।

 

গাবতলীতে বিএনপির
অবস্থান কর্মসূচী
পালন
আল আমিন মন্ডল (বগুড়া) থেকেঃ কেন্দ্রীয় কর্মসূচী অংশহিসেবে গতকাল বুধবার বগুড়ার গাবতলী থানা বিএনপি ও যুব-ছাত্রদলের উদ্যোগে ১নং রেলঘুমটিতে অনশন কর্মসূচী পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন গাবতলী থানা বিএনপির সভাপতি মাষ্টার আমিনুর রহমান তালুকদার, বিএনপির নেতা জুলফিকার হায়দার গামা, আবু জাফর মোস্তাফিজ, আবু তাহের, মাহফুজার রহমান ফারুক, জাহিদুল ইসলাম জাহিদ, আরেফিন, শাহীন সরকার, রেজা পাইকার, হায়দার আলী, গাবতলী থানা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আক্তারুজ্জামান লিটন, যুগ্ম আহবায়ক শফিকুল ইসলাম শফিক, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান মিন্টু, যুবদল নেতা লুৎফর, মোস্তা, লিটন, হারুন, ঝিনু, রুহুল, পৌর কৃষকদল সভাপতি রাজু পাইকার, গাবতলী থানা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আব্দুল হালিম, ছাত্রদল নেতা মোক্তাদির, মুঞ্জু, আবু জাফর, মুন, সুজা, সৌকত, রাহাত, সাদ্দাম, শামীম, মাহফুজার, ঝিনু, জাসাস নেতা বকুল ইসলাম, আরাফাত রহমান কোকো স্মৃতি সংসদ গাবতলী থানা শাখার সাধারন সম্পাদক রুহল আমিন প্রমূখ।