গফরগাঁওয়ে নির্মানাধীন অডিটরিয়ামের ছাদ ধসে শ্রমিক নিহত, ৮ শ্রমিক আহত

গফরগাঁও(ময়মনসিংহ)সংবাদদাতা ঃ ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে নির্ধানাধীন জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামের ছাদের ঢালাই কাজের সময় ছাদ ধসে পড়ে একজন শ্রমিক নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে আরও ৮জন শ্রমিক। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে গফরগাঁও পৌরশহরের জেলা পরিষদ ডাকবাংলা মাঠে ঘটনাটি ঘটে।
প্রত্যদর্শী সূত্রে জানা যায়, সকাল সাড়ে দশটার সময় নির্মনিাধীন এই অডিটরিয়ামের দ্বিতীয় তলার ছাদ ঢালাইয়ের কাজ চলছিল। কমপে অর্ধ শতাধিক শ্রমিক ছাদ ঢালাইয়ের কাজে নিয়োজিত ছিল। এ সময় হঠাৎ বিকট শব্দে ভবনটির সদ্য ঢালাইকৃত দ্বিতীয় তলার ছাদের একাংশ ধসে পড়তে থাকে। শ্রমিকরা লাফা লাফি করে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে চেষ্টা করে। এ সময় ধসে পড়া ছাদের রড় সহ নির্মাণ সামগ্রীর নির্মাণ শ্রমিক জাহান (৩০) শরীরে পড়লে ঘটনাস্থলেই সে নিহত হয়। এ সময় আনোয়ার (২২), সাজিম (১৮), আজাহার (১৭), কাঞ্চন (২০) আলমগীর (২৪), আজহারুল (১৯), নজরুল (৩১), নাদিম আহত হয়। গুরুতর আহত নাদিমকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপতালে এবং বাকীদের গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত শ্রমিক জাহানের লাশ পোস্ট মর্টেমের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ ৬ কোটি ৭১ লাখ টাকা ব্যায়ে এই অডিটরিয়ামটি নির্মাণ করছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রতন এন্টার প্রাইজ। কাজটি প্রায় শেষ পর্যায়ে। নির্মাণ কাজের শুরু থেকেই নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কাজ করার অভিযোগ ছিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। সিডিউল মোতাবেক রড় ও সিমেন্ট ব্যবহার না করা, পাথরের বদলে পাথরের ডাষ্ট রা রাবিশ ব্যবহার করেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটি। গতকাল শুক্রবার জেলা পরিষদের কর্মকর্তাদের নিষেধ থাকা সত্বেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ঢালাই কাজ শুরু করে।
ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান জানান, শুক্রবার সকালে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জেলা পরিষদের কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে গোপনে ঢালাই কাজ শুরু করে। ঢালইয়ে সিডিউল মোতাবেক সিম্টে না দিয়ে কম সিমেন্ট দেওয়া হচ্ছিল।
মোবাইল বন্ধ থাকায় ঠিকাদারদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মোঃ লোকমান হোসেন বলেন , বিষয়টি তদন্ত করে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।