ভৈরবে পুলিশের পিটুনিতে পাদুকা ব্যবসায়ীর মৃত্যুর অভিযোগ

এম.এ হালিম,ভৈরব প্রতিনিধি ॥
ভৈরবে পুলিশের পিটুনিতে সোহেল ভ’ইঁয়া (৩৮ ) নামে এক পাদুকা ব্যবসায়ীর মর্মান্তিক মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে । নিহত সোহেল ভ’ইয়াঁ মানিকদী মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত আঃ লতিফ ভ’ইয়াঁ ওরফে শম্ভু ফকিরের পূত্র । তবে পুলিশ নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেন এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু এবং জোয়ারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে আলাদা ২টি মামলা রুজু করা হয়েছে । তা তদন্তাধীন আছে । এছাড়াও নিহত সোহেলের বিরুদ্ধে নরসিংদীর শিবপুর থানায় মাদক আইনে মামলা রয়েছে । পরে রাতেই পুলিশ নিহতের মরদেহ সুরত হাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় ।
নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসিরা জানান মঙ্গলবার বিকালে ভৈরব থানা পুলিশ মানিকদী মধ্যপাড়া এলাকায় একটি জোয়ার আসরে হামলা চালায় । এ সময় জোয়ারীরা দৌড়ে পালিয়ে যায় । এ সময় ভয়ে নিহত সোহেলও দৌড়ে পালাতে গিয়ে পাশের একটি নদীতে পড়ে যায় । পরে পুলিশ সেখান থেকে তাকে ধরে মারধর করে সিএনজি অটোরিক্সায় তুললে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড় । এ সময় স্থানীয় গ্রাম পুলিশের দফাদার আরফানের সহায়তায় পুলিশ তাকে বাড়িতে পাঠালে সে মারা যায় । নিহত স্বজনদের দাবী পুলিশের পিটুনিতে তার মৃত্যু হয়েছে । নিহতের স্বজনদের দাবী সে জোয়া খেলা বোঝেনা কোনদিন খেলেও না। বাড়ি থেকে বের হয়ে রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় জোয়া খেলার কাছে দাড়িয়ে ছিল । নিহত সোহেলের বড় মেয়ে নরসিংদীর বেলাব উপজেলার দেওয়ানের চর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম ও ছোট মেয়ে স্থানীয় আলফাজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম এবং সবার ছোট ছেলে একই বিদ্যালয়ের ৮ম শেণীতে অধ্যায়নরত । এ ঘটনায় নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসিরা দোষী পুলিশের বিরুদ্ধে শাস্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানান ।
এ বিষয়ে নিহতের চাচাতো ভাই বাদল মিয়া, ও মনিরুজ্জামান জানান জোয়ারীরা পুলিশের তাড়া খেয়ে জোয়ারিরা পালিয়ে গেলেও সোহেল পানিতে পড়ে যায় । পরে পুলিশ তাকে ধরে মারধর করে গাড়ীতে উঠালে সে অসুস্থ হয়ে যায় । পরে স্থানীয় দফাদার আরফানের সহায়তায় তাকে মৃত অবস্থায় বাড়িতে পাঠায় ।
এ বিষয়ে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য ও গজারিয়া ইউপি আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি ফুল মিয়া সহ এলাকার অনেকেই একই কথা বলেন ।
স্থানীয় গজারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কাজী গোলাম সারোয়ার জানান তিনিও শোনেছেন জোয়ারীদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালালে জোয়ারীরা পালিয়ে যায় । কিন্ত এ সময় সোহেল কে পুলিশ আটক করে । পরে পুলিশ তাকে মারধর করলে সে মারা যায় । তবে ময়নাতদন্তেও রিপোর্ট পেলে জানা যাবে আসলে কোনটা সত্য । এছাড়া তিনি আরো বলেন এ এলাকায় জোয়া খেলা হয় । এ সংবাদ পুলিশ কে আমরা আরো আগেই জানিয়েছিলাম । এ সংবাদেও ভিত্তিতেই পুলিশ অভিযান চালায় ।

এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি (তদন্ত ) বাহালুল খান বাহার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন এলাকার ইউপি চেয়ারম্যানের কাছ থেকে জোয়া খেলার সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে জোয়ারীরা দৌড়ে পালিয়ে যায় । এ সময় সোহেল পানিতে গর্তের মধ্যে পড়ে যায় । পরে সে বিকালে বাড়িতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে মারা যায় ।
এ ঘটনায় দফাদার আরফান বাদী হয়ে একটি ইউডি মামলা দায়ের করেছে । এছাড়া জোয়া খেলার অপরাধে পুলিশের পক্ষ থেকে একটি সহ মোট ২টি মামলা রুজু করা হয়েছে ।