ভৈরবেই ৪২ , কিশোরগঞ্জে আরো ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত

রোববার (৩১ মে) জেলায় সংগৃহীত ৩১ জনের নমুনা মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথ (আইপিএইচ) এবং বুধবার (৩ জুন) সংগৃহীত ৯৪ জনের নমুনা কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়। শনিবার (৬ জুন) নতুন করে আরো   ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০২ জনে। ২ জন করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়েছেন। সুস্থ হওয়ার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২১ জন। ১১৬ জনের নমুনার মধ্যে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট শনিবার (৬ জুন) প্রকাশ করা হয়েছে। এতে ৪৫ জনের পজেটিভ এবং ৪৫ জনের নেগেটিভ এসেছে। ভৈরবের পুরাতন পজেটিভ ৪ জনের আবারও পজেটিভ এসেছে। প্রকাশিত ফলাফলে মোট ৪৫ জনের পজেটিভ ও ৭৬ জনের নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া ভৈরব উপজেলার পুরাতন পজেটিভ ৪ জনের আবারও পজেটিভ এসেছে। নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া এই ৪৫ জনের মধ্যে কটিয়াদী উপজেলার ৩ জন এবং ভৈরব উপজেলার ৪২ জন রয়েছেন।

উপজেলাওয়ারী হিসাবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৮২ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১৩ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৪৪ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৫০ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ২৯ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ২৭ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ২২ জন, ভৈরব উপজেলায় ২৪২ জন, নিকলী উপজেলায় ১০ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৩৭ জন, ইটনা উপজেলায় ১৭ জন, মিঠামইন উপজেলায় ২৫ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে ১৫ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৩ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ১ জন, ভৈরব উপজেলার ৫ জন, বাজিতপুর উপজেলার ১ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন রয়েছেন।