সেচস্কীম পাইব বন্ধ জেরে যুবককে কৃষকের গণধোলাই

কিশোরগঞ্জ সংবাদদাতা : কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জেরে কৃষকের সেচস্কীমের গভীর পাইব বন্ধ করার অপরাধে জহিরুল ইসলাম ওরফে জুয়েল মুন্সি(৩৬) নামে এক যুবককে গণধোলাই দিয়েছে স্থানীয় কৃষক। শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে উপজেলার গুনধর বাজারে এ গণ ধোলাইয়ের ঘটনা ঘটে।
এলাকাবাসি ও কৃষকেরা জানায়, জুয়েল মুন্সি এক সময় এলাকায় সেচস্কীম চালাতো। জমি নিয়ে তাদের পারিবারিক দ্বন্ধের কারনে তার স্কীম চলতি বোরো মৌসুম থেকে বন্ধ হয়ে যায়। এলাকার কৃষক তাদের বোরো জমি বাচাঁতে নিজেদের উদ্যোগে হাওরে তিনটি গভীর সেচ মেশিন বসায়। কিন্তু জুয়েল মুন্সি কিছুতেই তা মেনে নিতে না পেরে গত একমাস পূর্বে নতুন স্কীম মালিকদের কিশোরগঞ্জ থেকে মোবাইল নাম্বারে স্কীম বন্ধ করে দেবার হুমকি দেয়। একপর্যায়ে গত ৬/৭দিন পূর্বে গভীর রাতে সেচস্কীম মালিকদের তিনটি সেচ মেশিনের গভীর পাইব মাটি, বালি, সুরকি ও ইট দিয়ে বন্ধ করে দেয়। বন্ধ করার পরদিনও সে সেচস্কীম মালিকদের মোবাইলে বলে আমার স্কীম চালু না হলে কোন স্কীমই চলবে না। শতাধিক কৃষকের জমিতে পানি দেয়া বন্ধ হয়ে গেলে তিনটি সেচস্কীমে প্রায় এক’শ একর জমির ধান হুমকির মুখে পরে। সে দিন থেকে এলাকার কৃষকেরা জুয়েল মুন্সির প্রতি ক্ষিপ্ত হয় থাকে। কৃষকেরাও একজোট হয়ে তাদের জমি বাচাঁতে পরে আবার টাকা খরচ করে নতুন পাইব স্থাপন করে। শুক্রবার (২৩ মার্চ) জুয়েল মুন্সি ওই এলাকায় গেলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকেরা ঘেরাও করে তার মটর সাইকেল গতিরোধ করে। এসময় সেচ পাইব স্থাপনে ক্ষতিপূরণের দাবি জানালে সে কৃষকদের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে গালি-গালাজ করে। একপর্যায়ে বিক্ষোব্দ সকল কৃষক মিলে তাকে গণধোলাই দেয়।
জহিরুল ইসলাম ওরফে জুয়েল মুন্সি জানায়, আমি কিছু জানি না পাইব কে বন্ধ করেছে। বাজারে আমাকে পেয়ে কৃষকরা আমাকে মারপিট করেছে। তবে আমার জমি নিয়ে পারিবারিক কিছু দ্বন্ধ রয়েছে।