কুলিয়ারচরে শ্বশুর বাড়ীর নির্যাতনে বলি হলো গৃহবধু অর্চনা, গ্রেফতার-৩

কুলিয়ারচর ও বাজিতপুর (কিশেঅরগঞ্জ)সংবাদদাতা ঃ- কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার ছয়সুতি নিজ বাবার বাড়ীতে এসে ও স্ববামী সুধাংশ সরকারের অত্যাচাওে গৃহবধু অর্চনা রানী সরকার (২২)কে রেললাইনের নিচে পড়ে প্রান দিতে হয়েছে। এই ঘটনাটি ঘটে গত শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে। থানা পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত ছয় মাস আগে গৃহবধু অর্চনার বাবা উপেন্দ্র চন্দ্র সরকার ময়মনসিংহ জেলার গৌরিপুর উপজেলার চড়ক পাড়া গ্রামের পিতা-মৃত-অমল সরকারের ছেলে সুধাংশ সরকারের নিকট বিয়ে দেন। বিয়ের কিছুদিন পড় হতে অর্চনাকে তার স্বামী সুধাংশ সরকার ও পরিবারের লোকজন যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় শারি রিক ভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। গত ৩দিন আগে গৃহ বধু অর্চনাকে তার শ্বশুর বাড়ির লোক জন ৫০ হাজার টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। তখন গত বৃহস্প্রতিবার অর্চনা ও তার স্বামী সুধাংশ সরকার ঐ টাকার জন্য শ্বশুর বাড়িতে এসে তাকে ব্যাপক মারধর করে। পরের দিন শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে অর্চনা ভৈরব থেকে আসা লোকাল ট্রেনের নিচে পড়ে প্রান দেন। এই খবর পাওয়ার পর কুলিয়ারচর থানার পুলিশ তার স্বামী সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার কৃতরা হলেন পিতা-মৃত- অমল সরকারের ছেলে সুধাংশ সরকার (২৮), শ্বাশুড়ি নিয়তি সরকার ও উজ্জ্বলা সরকার (৩০) কে গত কাল শনিবার সকালে কিশোরগঞ্জ জেলে প্রেরন করেছে পুলিশ। গৃহবধুর পিতা- উপেন্দ্র সরকার গত কাল শনিবার জানান, বিয়ের সময় জামাতাকে যৌতুক হিসেবে নগদ ৭০ হাজার টাকা ও ২ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার দিয়েছেন। আরও টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করলে তার মেয়ে রেলের নিচে পড়ে দেহ দান করেন। কুলিয়ারচর থানার ওসি নান্নু মোল্লা জানান, গৃহ বধুকে প্ররোচনা মুলক মামলায় শ্বশুর বাড়ির ৩জনকে গ্রেফতার করেছেন।