কিশোরগঞ্জে সাংবাদিকদের সঙ্গে নবাগত এসপির মতবিনিময়

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন নবাগত পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ।
গতকাল সোমবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এ মত বিনিময় সভার আয়োজন করে জেলা পুলিশ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- কিশোরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আহমেদ উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক সাকাউদ্দিন আহাম্মদ রাজন, সিনিয়র সাংবাদিক সুবীর বসাক, এ কে নাসিম খান, সাইফউদ্দীন আহমেদ লেনিন, আবু তাহের, আনোয়ারুল ইসলাম ভূঁইয়া, মোঃ নাজিম উদ্দিন, নজরুল ইসলাম খায়রুল প্রমুখ।
এছাড়া উপস্থিত ছিলেন- কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নাজমুল ইসলাম, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আনোয়ার, করিমগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) অনির্বাণ চৌধুরীসহ পুলিশ বিভাগের অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তা প্রমুখ।

কিশোরগঞ্জে ইউএনও ও এসপির
নির্দেশ মানে না থানার ওসি

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জে ইউএনও ও এসপি’র নির্দেশ মানে না থানার ওসি। দাপুটে এ ওসির নাম আবু শামা মোঃ ইকবাল হায়াত। কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় যোগদানের পর থেকেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশকে তিনি বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে আসছেন। তার পূর্বের কর্মস্থল কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন কালেও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ না মানার অনেক অভিযোগ ছিল। কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় যোগাদানের পরেও তার এ অভ্যাস বদলায়নি।
জানা যায়, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বিন্নাটি ইউনিয়নের কয়ারখালী গ্রামের রহমত আলীর পুত্র মকবুল হোসেন তার বাড়ির পার্শ্বে প্রায় ১২ বৎসর যাবৎ একটি সেচ পাম্পে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগের মাধ্যমে তার নিজের জমিসহ এলাকার প্রায় ৫০ জন কৃষকের জমিনে সেচ দিয়ে বোরো ফসল উৎপাদন করে আসছে। গত ১৬ ফেব্র“য়ারী একই গ্রামের সুরুজ আলী মেম্বার প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে তার নির্দেশ তার ভাতিজা মোস্তাকিম, শাহ আলমের পুত্র শামীম ও শাহীন, সিরাজের পুত্র কামাল, আঃ রহিমের পুত্র সাদীসহ একটি দু®কৃতিকারী দল পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি হইতে উক্ত সেচ পাম্পের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। পরবর্তীতে কিশোরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন পুনঃ সংযোগের জন্য গেলে পল্লী বিদ্যুতের লোকজনদের দু®কৃতিকারীরা ফিরিয়ে দেয়। প্রায় এক মাস যাবৎ বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় বোরো জমিনের সেচ না দিতে পারায় জমি শুকিয়ে বোরো ফসল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে মকবুল হোসেন গত ০৭ মার্চ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ-আল-মাসউদ ওই দিনই ওসিকে এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশ দেন। ওসি এ ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় বিষয়টি কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল হাসানকে অবহিত করা হয়। তিনিও ওসিকে একাধিকবার ফোন করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। অথচ দাপুটে ওসি আবু শামা মোঃ ইকবাল হায়াত উর্ধ্বতন দুই কর্তৃপক্ষের নির্দেশকে কোন পরোয়া করেনি। জমিতে সেচ দেয়ার বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যাপারে ওসি কোন আইনানুগ ব্যবস্থা না নেয়ার প্রায় ২০ একর বোরো জমি শুকিয়ে যাচ্ছে। এতে বোরো ফসলের উৎপাদন মারাত্মক ব্যাহত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।