কুলিয়ারচরে যৌতুকের জন্য স্ত্রী খুন! স্বামী আটক

মোঃ নাঈমুজ্জামান নাঈম,প্রতিনিধি,কুলিয়ারচর,কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে যৌতুকের জন্য রিজা মনি (২২) নামে এক গৃহবধুকে শ্বাসরুদ্ধ করে খুন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। খুনের অভিযোগে স্বামী লিটন মিয়া (২৮) কে আাটক করেছে পুলিশ। গত ২২ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার দ্বাড়িয়াকান্দি গুইহাটি গ্রামে এ হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় নিহত রিজা মনির পিতা মোঃ জিল্লুর রহমান বাদী হয়ে ২৪ জানুয়ারী শনিবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধনী/০৩) এর ১১(ক)/৩০ধারা যৌতুকের জন্য শ্বাসরুদ্ধ করিয়া হত্যা করা ও সহায়তা করার অপরাধে কুলিয়ারচর থানায় ১টি মামলা নং-১৮/৩৬ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দ্বাড়িয়াকান্দি গুইহাটি গ্রামের মৃত রজব আলীর পুত্র লিটন মিয়া (২৮) প্রায় তিন বছর পূর্বে উপজেলার পূর্বতারাকান্দি গ্রামের মোঃ জিল্লুর রহমানের কন্যা রিজা মনি (২২) কে ইসলামিক শরীয়ত মতে বিবাহ করে। বিয়ের পর তাদের একটি ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। ছেলে রিয়ান এর বয়স বর্তমানে ১০ মাস। লিটন ও তার পরিবারের লোকজন দীর্ঘ দিন যাবত যৌতুকের জন্য রিজা মনিকে শারীরিক ও মানুষিক ভাবে নির্যাতন করিয়া আসছে। গত ২২ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত (অর্থাৎ ২৩ ফেব্রুয়ারী) ১টার সময় স্বামী লিটন, শ্বাশুড়ী শিরিনা বেগম (৫৫),ভাসুর মোঃ সেলিম মিয়া (৩২) পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে রিজা মনিকে যৌতুকের জন্য মারপিট করিয়া শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার পর ভাগলপুর জহিরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিজা মনিকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে মৃত ঘোষনা করিলে রিজা মনির মৃত দেহ হাসপাতালে রাখিয়া পালিয়ে যাওয়ার সময় হাসপাতালের নিরাপত্তা কর্মী ও স্থানীয়রা লিটনকে আটক করে বাজিতপুর থানা পুলিশে সোপর্দ করে। এ সময় শ্বাশুড়ী ও ভাসুর কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে বাজিতপুর থানা পুলিশ রিজা মনির লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। এ ব্যাপারে গত ২৩ ফেব্রুয়ারী দুপুরে লিটনের বাড়ীতে সরেজমিন গিয়ে বাড়ীতে কাউকে পাওয়া যায়নি। দুইটি বসত ঘরেই তালা ঝুলানো। এ ব্যাপারে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আঃ রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।