প্রধান মন্ত্রীর প্রতিশ্র“তির ২২ বছর পরও দাকোপের চালনা এম.এম কলেজটি জাতীয় করণ হয়নি।

দাকোপ (খুলনা) সংবাদদাতা : প্রধান মন্ত্রীর প্রতিশ্র“তির দীর্ঘ প্রায় ২২্ বছর অতি বাহিত হলেও আজও পর্যন্ত খুলনার দাকোপ উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত চালনা মোবারক মেমোরিয়াল ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়টি জাতীয় করণ করা হয়নি। প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী কলেজটি জাতীয় করণের জন্য প্রধান মন্ত্রী ররাবর আবেদন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।  আবেদন পত্র ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদর চালনা পৌরসভার প্রাণ কেন্দ্রে ১৯৮৪ সালে প্রায় ৬ একর জমির উপর খোনা এলাকার সম্ভ্রান্ত দানবীর মোল্যা পরিবারের মোঃ শাহাবুদ্দিন মোল্যাসহ চার ভ্রাতা মিলে তাদের মরহুম পিতা মোবারক মোল্যার নামে এলাকায় শিক্ষার প্রসারের জন্য মহাবিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। সকল শর্ত পূরণ করে ১৯৮৬ সালে কলেজটি এমপিও ভূক্ত হওয়ার পর থেকে সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসছে। বর্তমানে কলেজটিতে এইচ এসসি (জেনারেল), কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধিভূক্ত ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা (বিএম) কোর্স, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভূক্ত স্নাতক (পাস) কোর্স ও বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন এইচ এস.সি ও বিএ/ বিএস এস প্রোগ্রামসহ প্রায় ১৪৭৩ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত এবং বিগত বছরগুলোতে ভাল ফলাফল অর্জন করে আসছে। এছাড়া কলেজটিতে উচ্চ মাধ্যমিকের দুই‘টি এবং বাউবির দুই‘টি পরীক্ষা কেন্দ্র বিদ্যমান। তাছাড়া প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক ভবন, লাইব্রেরী, উন্নতমানের ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব, মানসম্মত ল্যাব, ছাত্র-ছাত্রীদের পৃথক হোস্টেল, শিক্ষক মিলনায়তন ও খেলাধুলার জন্য আন্তর্জাতিক মানের মাঠ রয়েছে। ১৯৯৬ সালের জাতীয সংসদ নির্বাচনে দাকোপ বটিয়াঘাটা তথা খুলনা-১ আসন থেকে বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছিলেন। ততকালিন সময়ে ওই কলেজ মাঠে নির্বাচনী জনসভায় প্রধান মন্ত্রী প্রতিশ্র“তি দিয়েছিলেন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় গেলে অগ্রাধীকার ভিত্তিতে কলেজটি জাতীয় করণ করা হবে। কিন্তু প্রধান মন্ত্রীর প্রতিশ্র“তির প্রায় ২২ বছর অতি বাহিত হলেও আজও পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন না হওয়ায় দাকোপবাসীর মনে নানা ক্ষোভ বিরাজ করছে। এব্যাপারে কলেজ প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ শাহাবুদ্দিন মোল্যা বলেন বর্তমান প্রধান মন্ত্রী ১৯৯৬ সালে নির্বাচনী জনসভায় প্রতিশ্র“তি দিয়েছিলেন দল ক্ষমতায় গেলে কলেজটি জাতীয করণ করবেন। কিন্তু আজও পর্যন্ত কলেজটি জাতীয় করণ করা হয়নি। আমার মরহুম পিতার নামের কলেজটি প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা অচিরেই জাতীয করনের ঘোষনা দিবেন বলে আশা করছি। এবিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ অসিম কুমার থানদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন আমরা প্রধান মন্ত্রীর নিকট কলেকটি জাতীয করণের জন্য আবেদন করেছি।