বাঁচতে চায় শিশু কবিতা

মজিবুর রহমান ফয়সাল

পাঁচ বছরের শিশু কবিতা। এক মুহুর্থ স্থির থাকতো না সে। সারাক্ষণ বই হাতে এ ঘর থেকে ও ঘর ছোটাছুটি করতো। তাই দেখে বাবা-মা বাড়ির পাশের স্কুলে শিশু শ্রেণিতে ভর্তি করে দেয়। এমন দুরন্তপনা শিশুটির শরীরে ধরা পড়ে থ্যালাসেমিয়া নামে দুরারোগ্য ব্যাধি। সে এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।
জানা গেছে, কবিতার বাড়ি উপজেলার অরণ্যপাশা গ্রামে। তার পিতার দিনমজুর হেলাল মিয়া। মাতা মোর্শেদা খাতুন। কবিতা তাদের দ্বিতীয় সন্তান। প্রথম সন্তানটি একই রোগে আক্তান্ত হয়ে মারা যায়। হেলাল মিয়া জানান, কিছু দিন আগে তার মেয়ে কবিতা হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। পরে চিকিৎকের পরিক্ষায় ধরা পড়ে সে থ্যালাসেমিয়া রোগে আক্তান্ত হয়েছে।
কবিতার মা মোর্শেদা খাতুন বলেন, মেয়েকে বাচাঁতে ধার-দেনা করে চিকিৎসার জন্য সাধ্যমত চেষ্টা করছি। ডাক্তার বলেছে ঢাকায় নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করাতে হবে। তার জন্য প্রচুর টাকা প্রয়োজন। তিনি শিশু কবিতাকে বাচাঁতে সমাজের সামর্থ্যবান, বিত্তবান ও হৃদয়বানদের কাছে সাহয্যের আবেদন করেছেন।